Naya Diganta

দেশে ২০২২ সালের মধ্যে ৮৮ লাখ প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হবে

দেশে ২০২২ সালের মধ্যে ৮৮ লাখ প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হবে

বর্তমান সরকারের ডিজিটালাইজেশন কার্যক্রমের অংশ হিসাবে গ্রাহকদের ঝামেলা মুক্ত পরিষেবা নিশ্চিত করতে, বিদ্যুৎ বিভাগ ২০২২ সালের মধ্যে সারাদেশে আরো ৮৮ লাখ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করবে। পাওয়ার সেলের পরিচালক মো. আবদুর রউফ মিয়া বাসসকে জানান, ‘বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থাগুলো গৃহীত বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে আরো প্রায় ৮৮ লাখ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপনের প্রক্রিয়া চলছে।’

তিনি বলেন, বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থাগুলো সকল বিদ্যুৎ গ্রাহককে স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটারিং সিস্টেমের আওতায় আনার জন্য বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিয়েছে এবং চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত সারাদেশে প্রায় ৩৮ লাখ ৭১ হাজার ১২৪ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হয়েছে।

সরকারি পরিসংখ্যান অনুসারে, বিতরণ সংস্থাগুলো চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত সারাদেশে প্রায় ৩৮ লাখ ৭১ হাজার ১২৪ সিঙ্গেল ফেজ এবং থ্রি ফেজ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করেছে, যার মধ্যে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি) ১৩ লাখ ১৯ হাজার ৩৫০ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করেছে। এর মধ্যে ১২ লাখ ৯৯ হাজার ৯২০ সিঙ্গেল ফেজ এবং ২৯ হাজার ৪৩০ থ্রি ফেজ। বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বিআরইবি) ১১ লাখ ১০ হাজার ৫৬৮ টি সিঙ্গেল ফেজ এবং ১৩ হাজার ৬০০ থ্রি ফেজ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটারসহ ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ডিপিডিসি) ৫ লাখ ২০ হাজার ৮৪৪, যার মধ্যে ৪৯ লাখ ৭১ হজার ৪২৬ সিঙ্গেল ফেজ এবং ৪৯ হাজার ৪১৮ থ্রি ফেজ স্থাপন করেছে। ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (ডেসকো) ৫ লাখ ৫৫ হাজার ২২৫ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করেছে, যার মধ্যে ৫ লাখ ৪ হাজার ৪৪৩ সিঙ্গেল ফেজ এবং ৫০ হাজার ৭৮২ থ্রি ফেজ মিটার, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ওজোপাডিকো) ৩ লাখ ৫১ হাজার ৬৯৮ স্মার্ট প্রিপেইড মিটার স্থাপন করেছে। এর মধ্যে ৩ লাখ ৪২ হাজার ৮৪৪ সিঙ্গেল ফেজ এবং ৮ হাজার ৮৫৪ থ্রি ফেজ মিটার এবং নর্দান ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (নেসকো) ১৩ হাজার ৪৩৯ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করেছে যার মধ্যে ১৩ হাজার ৫৩ সিঙ্গেল ফেজ এবং ৩৮৬ থ্রি ফেজ মিটার রয়েছে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার নিরলসভাবে সমস্ত নাগরিককে বিদ্যুতের আওতায় আনার জন্য কাজ করছে যেহেতু এখন আমাদের উৎপাদন ক্ষমতা ২৪ হাজার ৪২১ মেগাওয়াটে পৌঁছেছে। আমরা সকলকে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে কঠোর পরিশ্রম করছি।’

তিনি বলেন, পুরো বিদ্যুত গ্রাহককে স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটারিং ব্যবস্থার আওতায় আনা হবে, যা ঝামেলা-মুক্ত পরিষেবা নিশ্চিত করার পাশাপাশি সিস্টেম লস এবং অনাকাক্সিক্ষত বিলের ঝামেলা-মুক্ত করতে সহায়তা করবে।

নসরুল হামিদ বলেন, ‘একবার স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন হয়ে গেলে, গ্রাহকদের ভেন্ডিং স্টেশনগুলোতে যাওয়ার প্রয়োজন হবে না। বরং বিদ্যুৎ পরিষেবা অব্যাহত রাখতে তারা দেশ বা বিদেশ যে কোন জায়গা থেকেই নিজস্ব উপায় ব্যবহার করে কার্ডগুলো রিচার্জ করতে পারবেন,’ বলেছিলেন।

নগরীর পূর্ব শেওড়াপাড়ার বাসিন্দা ও ডেসকোর গ্রাহক ইমরান হাসান মজুমদার বাসসের সঙ্গে আলাপকালে জানান, প্রিপেইমেন্ট স্মার্ট মিটার গত এক বছরে তার বিদু্যুতের বিল পরিশোধে স্বস্তি এনে দিয়েছে।

ইমরান বলেন, তিনি বিভিন্ন মোবাইল আর্থিক পরিষেবা ব্যবহারের মাধ্যমে যে কোনও সময় এর বিল দিতে পারেন। তিনি অবশ্য মাসিক বিলে বিভিন্ন চার্জ কমানোর কথা বলেন।

সরকারি পরিসংখ্যান অনুসারে, বিতরণ সংস্থাগুলো চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত সারাদেশে প্রায় ৩৮ লাখ ৭১ হাজার ১২৪ সিঙ্গেল ফেজ এবং থ্রি ফেজ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করেছে, যার মধ্যে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি) ১৩ লাখ ১৯ হাজার ৩৫০ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করেছে। এর মধ্যে ১২ লাখ ৯৯ হাজার ৯২০ সিঙ্গেল ফেজ এবং ২৯ হাজার ৪৩০ থ্রি ফেজ। বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (বিআরইবি) ১১ লাখ ১০ হাজার ৫৬৮ টি সিঙ্গেল ফেজ এবং ১৩ হাজার ৬০০ থ্রি ফেজ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটারসহ ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ডিপিডিসি) ৫ লাখ ২০ হাজার ৮৪৪, যার মধ্যে ৪৯ লাখ ৭১ হাজার ৪২৬ সিঙ্গেল ফেজ এবং ৪৯ হাজার ৪১৮ থ্রি ফেজ স্থাপন করেছে। ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (ডেসকো) ৫ লাখ ৫৫ হাজার ২২৫ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করেছে, যার মধ্যে ৫ লাখ ৪ হাজার ৪৪৩ সিঙ্গেল ফেজ এবং ৫০ হাজার ৭৮২ থ্রি ফেজ মিটার, ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ওজোপাডিকো) ৩ লাখ ৫১ হাজার ৬৯৮ স্মার্ট প্রিপেইড মিটার স্থাপন করেছে। এর মধ্যে ৩ লাখ ৪২ হাজার ৮৪৪ সিঙ্গেল ফেজ এবং ৮ হাজার ৮৫৪ থ্রি ফেজ মিটার এবং নর্দান ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (নেসকো) ১৩ হাজার ৪৩৯ স্মার্ট প্রিপেমেন্ট মিটার স্থাপন করেছে যার মধ্যে ১৩ হাজার ০৫৩ সিঙ্গেল ফেজ এবং ৩৮৬ থ্রি ফেজ মিটার রয়েছে।

সরকারি পরিসংখ্যানে দেখা যায়, বিতরণ সংস্থাগুলো ২০২০-২০২১ অর্থবছরে ২২ লাখ ২৬ হাজার ৬০০ স্মার্ট প্রিপেইড মিটার স্থাপন করবে। গত বছর ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশে মোট ৩৭ লাখ ১১ হাজার ৪৬৩ স্মার্ট প্রিপেইড মিটার স্থাপন করা হয়েছে।

বাসসের সাথে আলাপকালে বিদ্যুৎ সেলের মহাপরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ হোসেন বলেন, সমস্ত গ্রাহককে স্মার্ট প্রিপেইমেন্ট মিটারিং সিস্টেমের আওতায় আনার পরে বিদ্যুত বিলিং এর প্রক্রিয়াতে কোনও ধরণের অনিয়ম হবে না।

তিনি বলেন, ছয়টি বিতরণ সংস্থা ২০২৩ সালের মধ্যে মোট ৩ কোটি ৮৬ লাখ ২৮ হাজার ৮৫১ জন বিদ্যুৎ গ্রাহককে স্মার্ট প্রিপেইমেন্ট মিটারিং সিস্টেমের আওতায় আনবে।

তিনি বলেন, ‘প্রতিদিন নতুন সংযোগ নেয়ার মাধ্যমে বিদ্যুৎ গ্রাহকদের সংখ্যা বাড়ছে। বিদ্যুৎ উৎ্পাদন, সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যবস্থার সমন্বিত উন্নয়নের মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে সাশ্রয়ী মূল্যে সবার জন্য নির্ভরযোগ্য মানসম্পন্ন বিদ্যুত প্রাপ্তি নিশ্চিত করাই মূল লক্ষ্য।