Naya Diganta

খালেদা জিয়া জেলে না মুক্ত, প্রশ্ন ডা: জাফরুল্লাহর

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া জেলে না কি মুক্ত- এমন প্রশ্ন রেখে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়া যদি মুক্ত হন তবে তিনি যেন হুইলচেয়ারে করে হলেও চন্দ্রিমা উদ্যানে সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত করতে যান।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্য করে ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, বেগম খালেদা জিয়া যদি মুক্ত হয়ে থাকেন তাহলে দেশবাসীর প্রত্যাশা কী ছিল? জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত করার জন্য অন্তত হুইলচেয়ার করে তাকে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন। আরো সুন্দর হতো তার হুইলচেয়ার যদি জাইমা (তারেক রহমানের মেয়ে) ঠেলে ঠেলে নিয়ে যেত। খালেদা জিয়া কি যেতে পেরেছেন? সেটা যদি হতো তাহলে আজ এখানে ঝড় বইত। আর যদি বেগম খালেদা জিয়া বন্দী থাকেন তাহলে তাকে মুক্তির ব্যবস্থা করুন।

খালেদা জিয়া সাহসী নারী উল্লেখ করে ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, প্রথমবার যখন ক্ষমতায় এসেছিলেন তখন আমি বলেছিলাম ট্রানজিট দিয়েন না। তিনি আমার পরামর্শ নিয়েছিলেন। আজকে দেখেন ট্রানজিটে কী পরিমাণ লুট হচ্ছে। এজন্য বলি আমাদের খালেদা জিয়াকে দরকার।

বিএনপির উদ্দেশ্য তিনি বলেন, মেনমেন করা বাদ দেন, মাঠে নামেন।

বিএনপির বুদ্ধিজীবী হিসেবে পরিচিত ডা: জাফরুল্লাহ বলেন, বর্তামান ভোট ক্ষমতাসীনদের সরিয়ে অন্য কাউকে আনলে হবে না। একটা সুষ্ঠু সরকার প্রয়োজন। যেখানে জনগণের অধিকার থাকবে। আমার ভোট আমি যাকে ইচ্ছা তাকে দেব।

আলেমদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, আপনাদের দায়িত্ব অনেক। আপনাদেরকে আমরা শ্রদ্ধা করি, সম্মান করি। অন্যরা দোষ করলে দোষ কম হয়, আপনারা দোষ করলে দোষটা বেশি হয়। আপনারা আমাদের নেতা। মেয়েদেরকে আটকিয়ে রাখবেন না। যে নামাজ পড়ে না, তার বিচার করার দায়িত্ব আপনাদের না। আল্লাহ বিচার করবেন।

ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির চেয়ারম্যান কে এম আবু তাহেরের সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহীম, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহামুদুর রহমান মান্না, বিএনপির ভাইস-চেয়াম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূর, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম, গণস্বাস্থ্যের মিডিয়া উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু ও অধ্যক্ষ মাওলানা মোশাররফ হোসেন প্রমুখ।