Naya Diganta

চট্টগ্রামে নালায় পড়ে যাওয়া ছাত্রীর লাশ উদ্ধার

চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ এলাকায় ফুটপাত দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় নালায় পড়ে যাওয়া কলেজছাত্রী সেহরিন মাহমুদ সাদিয়ার (২০) লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। পাঁচ ঘণ্টা অভিযান চালানোর পর সোমবার দিবাগত রাত ২টা ৫০ মিনিটে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

সোমবার রাত সোয়া ১০টার দিকে আগ্রাবাদের শেখ মুজিব সড়ক সংলগ্ন নবী টওয়ারের পাশের নালায় পড়ে যান সাদিয়া।

চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক নিউটন দাশ বলেন, নিখোঁজ কলেজছাত্রীকে উদ্ধারের পর আগ্রাবাদ ইসলামিয়া হাসপাতালে নিয়ে নেয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, এক তরুণীর নালায় পড়ে যাওয়ার সংবাদ পেয়ে ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার অভিযান শুরু করে। অভিযানে ডুবুরি দলের সদস্যরাও যোগ দেয়। আশপাশের এলাকায় অভিযান চালিয়ে নালা থেকে রাত ২টা ৫০ মিনিটে তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার অভিযানে স্থানীয়রাও সহায়তা করেছেন।

জানা গেছে, সাদিয়া আগ্রাবাদ এলাকা থেকে চশমা কিনে মামার সাথে বাসার দিকে যাচ্ছিলেন। একপাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় তিনি পা পিছলে নালায় পড়ে যান। সাদিয়া পড়ে যাওয়ার সাথে সাথে তার মামাও নালায় ঝাঁপ দেন। কিন্তু স্রোতের কারণে তাকে উদ্ধার করতে পারেননি। পরে স্থানীয়দের কাছ থেকে সংবাদ পেয়ে ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার অভিযান শুরু করে।

সাদিয়া একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ছিলেন বলে জানা গেছে। তার বাড়ি নগরীর হালিশহর থানার বড়পুল মইন্যা পাড়া শুক্কুর মেম্বারের বাড়ি।

এর আগে ভারি বৃষ্টিতে বন্দরনগরীতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হলে ২৫ আগস্ট সকালে মুরাদপুর এলাকায় খালে পড়ে তলিয়ে যান সালেহ আহমদ নামের এক সবজি ব্যবসায়ী। তিনি ফটিকছড়ি যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসে উঠতে মুরাদপুর গিয়েছিলেন। এরপর বেশ কয়েকদিন তল্লাশি চালিয়েও তার খোঁজ মেলেনি।

চলতি বছরের ৩০ জুন নগরীর ষোলশহর চশমা হিল এলাকাতেও এমন দুর্ঘটনা ঘটে। সেখানে খালের পাশের সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় খালে পড়ে যায় একটি অটোরিকশা। স্রোত থাকায় খালে তলিয়ে মারা যান চালক সুলতান (৩৫) ও যাত্রী খাদিজা বেগম (৬৫)।

এর আগে ২০১৮ সালের ৯ জুন আমিন জুট মিল এলাকায় নালায় পড়ে বৃষ্টির পানির স্রোতে ভেসে যায় শিশু আল আমীন (৭)। পরে তার লাশ উদ্ধার হয়।

২০১৭ সালের ২ জুলাই এম এম আলী সড়কে রয়েল গার্ডেন কমিউনিটি সেন্টার সংলগ্ন বড় নালায় পড়ে তলিয়ে যান সাবেক সরকারি কর্মকর্তা শীলব্রত বড়ুয়া (৬২)। পরদিন প্রায় ছয় কিলোমিটার দূরে মিয়াখান নগরে চাক্তাই খালে তার লাশ পাওয়া যায়।