Naya Diganta

২২ জনকে আসামী করে মামলা ইউপি সদস্য গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনোত্তর সহিংসতায় নাওড়া এলাকায় আওয়ামী লীগের ২০ নেতাকর্মীর বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন জসুকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় মোশারফ হোসেনের বোন ছালেহা ভুঁইয়া বাদি হয়ে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিজানুর রহমান মিজান ও তার ভাই শফিকুল ইসলামসহ ২২ জনকে আসামি করে রূপগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেফতারকৃত জসিম উদ্দিনকে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। এখনো নাওড়া এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। আগুনে ঘরবাড়ি পুড়ে যাওয়ায় অনেকেই খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। কেউ কেউ বাড়ি ছেড়ে চলে গেছেন। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। র্যাবের সদস্যরা টহল দিচ্ছে।
জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাতে কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী মিজানুর রহমান, তার ভাই রফিকুল ইসলাম ও শফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল লোক রামদা, ছুরি, বল্লম, চাইনিজ কুড়াল, শর্টগান, আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে এ হামলা চালায়। হামলায় দু’জন গুলিবিদ্ধ, ১৫ জন আহত ও একজন নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় কায়েতপাড়া ইউনিয় পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য জসিম উদ্দিন জসুকে (৪০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক বলেন, সন্ত্রাসীরা যত প্রভাবশালী হোক তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। তাদের শাস্তি পেতে হবে।
রূপগঞ্জ থানার ওসি এ এফ এম সায়েদ বলেন, ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ, র্যাব ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।