Naya Diganta

সোনাগাজীতে ধর্ষককে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

ফেনীর সোনাগাজীতে কোমল পানির সাথে চেতনানাশক খাইয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে আশফাকুর রহমান বাবলা (৩৫) নামে এক নির্মাণ শ্রমিককে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

সোমবার উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের বাদামতলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আটককৃত ধর্ষক দিনাজপুর জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের হরিরামপুর আদর্শ গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, নির্মাণ শ্রমিক আশফাকুর রহমান বাবলা ওই তরুণীর নানার মালিকানার ভাড়া বাসায় স্ত্রীসহ গত ৪/৫ মাস যাবৎ বসবাস করে আসছেন। রোববার সকালে ওই তরুণী তার নানীর সাথে নানার বাড়িতে বেড়াতে আসে। রোববার রাত আটটার দিকে প্রচণ্ড গরমের কথা বলে ওই তরুণীর নানা, নানী এবং ওই তরুণীকে ঠান্ডা কোমল পানীয়র সাথে চেতনানাশক মিশিয়ে খাইয়ে দিলে সবাই অচেতন হয়ে পড়েন। এ সুযোগে ওই তরুণীকে রাতভর ধর্ষণ করে এবং তার নানীর ব্যবহৃত মুঠোফেনে তরুণীর আপত্তিকর ছবি ধারণ করে। পরে তার পাশেই ঘুমিয়ে পড়ে ধর্ষক।

সকালে ধর্ষকের স্ত্রীসহ ঘর মালিকের পরিবারের সদস্যদের সাড়া শব্দ না পেয়ে প্রতিবেশীরা কৌশলে ঘরের দরজা খুলে বাবলাকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

এ ব্যাপারে তরুণীর মামা বাদি হয়ে বাবলাকে একমাত্র আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মঈন উদ্দিন আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

দেখুন: