Naya Diganta

বাদামের পর এবার ভাইরাল খাজা বিক্রেতার কবিতা

বাদামের পর এবার ভাইরাল খাজা বিক্রেতার কবিতা

বাদাম বিক্রি করতে বেরিয়ে সুরের ছন্দে মানুষকে মাতিয়ে এখন ভুবনজুড়ে খ্যাতি পেয়েছেন বীরভূমের দুবরাজপুরের কুড়ানজুড়ি গ্রামের বাসিন্দা ভুবন বাদ্যকর। বাদাম বিক্রির সাথে সাথে তার রচিত ‘বাদাম বাদাম দাদা কাঁচা বাদাম, আমার কাছে নেই গো বুবু ভাজা বাদাম’, গান এখন নেটদুনিয়ায় ভাইরাল।

সেই গান নিজেদের ফেসবুক, ইউটিউব চ্যানেলে দিয়ে বহু ব্যক্তি রোজগার করছেন প্রচুর টাকা। কিন্তু সেই টাকার কোনো ভাগ পাচ্ছেন না ভুবন। তাই ইতোমধ্যেই নিজের গানের কপিরাইট চেয়ে দুবরাজপুর থানার দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি। এরই মধ্যে এবার নতুন করে নেটদুনিয়া মাতাচ্ছেন মুর্শিদাবাদের হাফিজুল। খাজা বিক্রেতা হাফিজুলের কবিতা এখন নেটদুনিয়ায় নতুন করে ভাইরাল। তবে এই খাজা বিক্রেতার বাড়ি মুর্শিদাবাদের কোথায়, তা এখনো সঠিকভাবে জানা যায়নি।

ভাইরাল ওই ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, জনৈক খাজা বিক্রেতা নিজেকে হাফিজুল নামে পরিচয় দিয়ে ছন্দ মিলিয়ে একটি কবিতা বলছেন। ‘তিলের খাজা খেতে মজা, বাচ্চা খেলে হবে তাজা, আজ খান নিজের বাড়িতে, এরপর পাবেন হাজারদুয়ারিতে।’ এরপর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিখ্যাত একটি কবিতার ছন্দের সাথে তাল মিলিয়ে মিলিয়ে হাফিজুলের কবিতা এগোতে থাকে। ভাইরাল ভিডিওটিতে হাফিজুলকে কবিতার ছন্দে বলতে শোনা যাচ্ছে তিনি ছ’মাস খাজা বিক্রি করেন গ্রামের পথে পথে।

ভিডিওটিতে আরো দেখা গিয়েছে, সদা হাস্যমুখ হাফিজুল খাজা বিক্রি করার সাথে সাথে বিড়িও খাচ্ছেন। তবে এই মহামারী পরিস্থিতিতে বিড়ি ধরিয়ে সেই হাত পরিষ্কার না করে খাজা বিক্রি করায় নেটমাধ্যমে অনেকেই সমালোচনা করেছেন এই ভিডিওর। আবার অনেকেই দাবি করেছেন এই ভিডিওটি তিন বছরের পুরনো। তবে বাদাম বিক্রেতা ভুবন বাদ্যকারের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরই হাফিজুলের এই ভিডিও এখন নেটমাধ্যমে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।