Naya Diganta

প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থিতার জন্য সামরিক প্রধানের পদ ছাড়লেন হাফতার

খলিফা হাফতার

লিবিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য সামরিক প্রধানের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন পূর্ব লিবিয়াভিত্তিক যুদ্ধবাজ নেতা জেনারেল খলিফা হাফতার। বুধবার এক বিবৃতিতে এই ঘোষণা দেন তিনি।

বিবৃতিতে জানানো হয়, আগামী ২৪ ডিসেম্বর লিবিয়ার প্রেসিডেন্ট ও সাধারণ নির্বাচন পর্যন্ত হাফতার তার কথিত লিবিয়ান ন্যাশনাল আর্মির (এলএনএ) অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নিয়োগ দিয়েছেন।

বিবৃতিতে হাফতার বলেন ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে ২৪ ডিসেম্বর তিন মাসের জন্য এলএনএর প্রধান হিসেবে জেনারেল আবদুর রাজ্জাক আল-নাজহুরি দায়িত্ব পালন করবেন।

২০১১ সালে আরব বসন্তের পরিপ্রেক্ষিতে লিবিয়ায় সাধারণ মানুষ চার দশক দেশটি শাসন করা একনায়ক মুয়াম্মার গাদ্দাফির পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করে। গাদ্দাফি সামরিক পন্থায় বিক্ষোভকারীদের দমন করতে চাইলে দেশটিতে গৃহযুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ে। গৃহযুদ্ধের এক পর্যায়ে বিদ্রোহীদের হাতে গাদ্দাফি নিহত হলেও দেশটিতে বিভিন্ন পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ অব্যাহত থাকে। বিবাদমান পক্ষগুলোর মধ্যে সংঘর্ষ থেকে নতুন করে দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০১৪ থেকে শুরু হওয়া গৃহযুদ্ধে দেশটি ত্রিপোলিকেন্দ্রীক পশ্চিম ও তবরুককেন্দ্রীক পূর্বাঞ্চলীয় সরকারের মধ্যে বিভক্ত হয়ে পড়ে।

২০১৯ সালের এপ্রিলে পূর্বাঞ্চলীয় যুদ্ধবাজ নেতা খলিফা হাফতার জাতিসঙ্ঘ সমর্থিত পশ্চিমাঞ্চলের সরকারের কাছ থেকে রাজধানী ত্রিপোলির নিয়ন্ত্রণ নিতে হামলা চালায়। দীর্ঘ ১৪ মাস সংঘর্ষের পর তার এই হামলা ব্যর্থ হয়।

গত বছরের অক্টোবরে জাতিসঙ্ঘ উভয়পক্ষকে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত করে এবং দেশটির সংকট সমাধানে বিবাদমান পক্ষগুলোর মধ্যে রাজনৈতিক সংলাপের সূচনা করে।

সর্বদলীয় সংলাপের পর ফেব্রুয়ারিতে সর্বসম্মতিক্রমে অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠন করা হয়। একইসাথে চলতি বছরের ২৪ ডিসেম্বর দেশটিতে সাধারণ ও প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের তারিখ নির্ধারিত হয়।

সূত্র : ডেইলি সাবাহ