Naya Diganta

পঞ্চগড়ে গবাদি পশুর ‘লাস্পি' ভাইরাসের সংক্রমণ

পঞ্চগড়ে গবাদি পশুর ‘লাস্পি' ভাইরাসের সংক্রমণ

পঞ্চগড় তেতুঁলিয়া উপজেলায় গবাদি পশুর মাঝে লাম্পি নামের এক ভাইরাস ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়েছে। এক সপ্তাহে তেতুঁলিয়া উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে সহস্ত্রাধিক গরু এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এতে কৃষকরা গবাদি পশু নিয়ে আতঙ্কে রয়েছে। এ রোগের ওষুধ না পেয়ে কৃষকরা চিন্তিত হয়ে পড়েছে।

বৃহস্পতিবার জানা যায় যে তেতুঁলিয়া উপজেলার দর্জিপাড়া,কানকাটা, শারিয়াল ও শালবাহান,বালা বাড়িসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে সহাস্ত্রাধিক গরু লাম্পি রোগে আক্রান্ত। কৃষকরা এর আগে কখনো এ রোগের গরু আক্রান্তের কথা বলতে পারছে না। চিকিৎসার জন্য উপজেলা প্রাণী সম্পদ কার্যলয়ে গরু নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা রোগের ধরন আকৃতি দেখে এই রোগকে লাম্পি ভাইরাস বলে শনাক্ত করেন। গরুর মালিকরা জানান, প্রথমে গরুর গাযে জ্বর, মুখ ও নাক দিযে লালা বের হয়ে আসে। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুটি আকৃতি ক্ষত দেখা দেয়। তারপর গরুর শরীর বসন্ত রোগের মতো গুটি দেখা দেয়। তারপর আক্রান্ত গরুটি খাবার খেতে পারে না। আক্রান্ত গরু মারাত্মকভাবে দুর্বর হয়। দাঁড়িয়ে থাকার শক্তি হারিয়ে ফেলে। গরুর চিকিৎসার জন্য হাটবাজারে কোনো ওষুধ পাওয়া যাচ্ছে না। কোনো কোনো স্থানে ওষুধ পাওয়া গেলেও ব্যবসায়ী দাম অনেক বেশি নিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

তেতুঁলিয়া উপজেলার প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা.কাজী মাহবুব রহমান জানান,রোগটি লাম্পি স্কিন ডিজিজ ভাইরাস নামে পরিচিত।এটি চামড়া রোগ। সময় মতো আক্রান্ত গরুর চিকিৎসা করা হলে তাড়াতাড়ি ভালো হয়ে যায়। গরুর চিকিৎসার জন্য প্রাণী সম্পদ অফিস থেকে দু’হাজারের বেশি গোটপক্স ভ্যাকসিন সরবরাহ করা হয়েছে।