Naya Diganta

এরদোগানের মূর্তিকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা

এরদোগানের মূর্তিকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা

জার্মানির ওয়েসবাডেন শহর  থেকে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগানের একটি মূর্তি সরিয়ে নেয়া হয়েছে। সমর্থক এবং সমালোচকদের মধ্যে কথা কাটাকাটি এবং হাতাহাতির পর এরদোগানের ১৩ ফুট উঁচু সোনালী রঙের মূর্তিটি সরিয়ে নেয় ওয়েসবাডেন শহরের কর্তৃপক্ষ। 

একটি আর্ট ফেস্টিভ্যাল উপলক্ষে মূর্তিটি তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু প্রদর্শনের জন্য জনসমক্ষে আনার পর অজ্ঞাতনামা লোকজন এর গায়ে বড় করে তুর্কি হিটলার লিখে রেখে যায়। আর তা নিয়ে পরিস্থিতি ঘোলাটে হয়ে পড়লে আয়োজকরা মূর্তিটি সরিয়ে নেন।

ওয়েসবাডেন ফেস্টিভ্যালের থিম ছিল ব্যাড নিউজ বা দুঃসংবাদ। আয়োজকরা বলছেন, সুস্থ আলোচনা-বিতর্ক শুরু হবে এই আশায় তারা এরদোগানের মূর্তিটি তৈরি করেছিলেন। কিন্তু  মূর্তিটি নিয়ে এরদোগানের সমর্থক এবং বিরোধীদের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক এক পর্যায়ে হাতাহাতি, ধাক্কাধাক্কিতে রূপ নেয়।

জার্মানির একটি শহরের কাউন্সিলর অলিভার ফ্রাঞ্জ বলেন, কিছু মানুষের হাতে ধারালো অস্ত্র ছিল। পরে পুলিশ এবং শহরের মেয়রের মধ্যে এক বৈঠকের পর নিরাপত্তার জন্য মূর্তিটি সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। জার্মানিতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় তুর্কি বংশোদ্ভূত মানুষ বসবাস করে। তাদের মধ্যে এরদোগানের সমর্থক যেমন রয়েছে, বিরোধীও রয়েছে অনেক।