২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ফুলবাড়ীতে মাদকের কারবার ছেড়ে দেয়ার শপথ ৪৫ জনের

-

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ৪৫ মাদক ব্যবসায়ী আনুষ্ঠানিকভাবে মাদক সেবন ও মাদক ব্যবসা না করার শপথ নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার বালারহাট আদর্শ স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে এক মাদক বিরোধী সমাবেশে স্বেচ্ছায় উপস্থিত হয়ে তারা এ শপথ নেন।

ফুলবাড়ী থানা পুলিশের আয়োজনে সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার মহিবুল হক খান। কুড়িগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেনহাজুল আলমের সভাপতিত্বে এ সময় নাওডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম বন্ধন, নাওডাঙ্গা ইঊপি চেয়ারম্যান মুসাব্বের আলী, অফিসার ইনচার্জ খন্দকার ফুয়াদ রুহানী , উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহাজাহান আলী বাদশা, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মজিবর রহমান, সাবেক চেয়ারম্যান মইনুল হক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ বক্তব্য রাখেন।

নাওডাঙ্গা ইঊপি চেয়ারম্যান মুসাব্বের আলীসহ সমাবেশে উপস্থিত স্থানীয়রা জানান, ভারতীয় সীমান্ত ঘেষা কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার এই নাওডাঙ্গা ইউনিয়নটি মাদক চোরাচালানের একটি নিরাপদ রুট। বিজিবি ও পুলিশের কড়া নজরদারীর পরও রাতের আধারে ভারত থেকে বিপুল পরিমাণ মাদক এ এলাকায় প্রবেশ করে। মাদকগুলোর মধ্যে মদ, গাঁজা, ফেন্সিডিল ও ইয়াবা উল্লেখযোগ্য। সহজলভ্য ও অধিক লাভজনক হওয়ার কারণে এ এলাকার শত শত মানুষ এ ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছে। তারা সীমান্ত পেরিয়ে আসা মাদকগুলো দেশের বিভিন্ন এলাকায় পাচার করে রাতারাতি বাড়ি-গাড়িসহ বিশাল বিত্ত সম্পদের মালিক হয়ে গেছে। তাছাড়া মাদক সহজলভ্যতার কারনে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন বিভিন্ন বয়সের মাদকসেবীরা দলে দলে মাদক সেবনের জন্য আসে সীমান্তবর্তী বালারহাট বাজারে।

একদিকে মাদক ব্যবসায়ীদের বড় বড় চালান যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন এলাকায় অন্যদিকে খুচরা বিক্রেতারা দেদারচ্ছে যত্রতত্র মাদক বিক্রি করছে সেবনকারীদের কাছে। সব মিলিয়ে মাদকের স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে ফুলবাড়ী উপজেলার এ নাওডাঙ্গা ইউনিয়ন। তাই পুলিশ সুপারের নির্দেশে মাদক বিরোধী এ সমাবেশের আয়োজন করেছে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ। তারা আরও জানান, পুলিশ প্রশাসন সকলকে সমাবেশে আহব্বান করলেও কয়েকজন মাদক কারবারি সমাবেশে এসে শপথ নিয়েছে। বড় বড় মাদক কারবারি অনেকেই এখানে আসেনি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার মহিবুল হক খান বলেন, আমরা চাই আপনারা মাদক সেবন, মাদক কারবার ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনের ফিরে আসুন। আজকে যারা সমাবেশে মাদক সেবন ও ব্যবসা ছেড়ে দেয়ার শপথ নিলেন তাদেরকে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ; কিন্তু যে সকল মাদকসেবী বা কারবারি আমাদের ডাকে সারা দেননি তারা যত শক্তিশালীই হোন না কেন আপনাদের জন্য কঠিন সময় অপেক্ষা করছে। তিনি ফুলবাড়ী উপজেলাকে মাদকমুক্ত করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।


আরো সংবাদ