২২ সেপ্টেম্বর ২০২০

সোলাইমানি হত্যায় জার্মান ভূমি ব্যবহারে ৮ এমপির অভিযোগ

সোলাইমানি হত্যায় জার্মান ভূমি ব্যবহারে অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ - ছবি : সংগৃহীত

ইরানি জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার কাজে জার্মান ভূখণ্ড ব্যবহার করার দায়ে দেশটির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের বিরুদ্ধে ফৌজদারি অভিযোগ দায়ের করেছেন জার্মানির আট সংসদ সদস্য। অভিযোগে তারা বলেছেন, জার্মানির পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত মার্কিন বিমানঘাঁটি ‘রামস্টেইন’ থেকে জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যার কাজে অপারেশন পরিচালনা করা হয়েছে।

মার্কিন সেনারা আফ্রিকা মহাদেশ ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে তৎপর ড্রোনগুলো রামস্টেইন ঘাঁটিতে বসে নিয়ন্ত্রণ করে এবং জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যার সময়ও এই ঘাঁটি ব্যবহার করা হয়েছে বলে জার্মানির ওই আট বামপন্থি এমপি অভিযোগ করেছেন।

মার্কেলের বিরুদ্ধে অন্যতম অভিযোগকারী এমপি আলেক্সান্ডার নেউ এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘একমাত্র জার্মানির ভূমিতে অবস্থিত মার্কিন বিমান ঘাঁটি রামস্টেইনে স্থাপিত একটি স্যাটেলাইট রিলে স্টেশন থেকেই ড্রোন হামলার সিগন্যাল নিয়ন্ত্রণ করা হয়।’ তিনি আরো বলেন, ‘জার্মান সরকার আমেরিকার অবৈধ ড্রোন যুদ্ধে পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করবে- এটা আমরা মেনে নিতে পারি না।’

অ্যাঙ্গেলা মার্কেল সরকার আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘনের বিষয়টি অবহেলা করে আমেরিকাকে ড্রোন হামলায় সাহায্য করে যাচ্ছে বলে ওই ফৌজদারি অভিযোগে বলা হয়েছে।

পাকিস্তান থেকে শুরু করে আফগানিস্তান, গোটা মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকার দেশগুলোতে আমেরিকা এ পর্যন্ত যত ড্রোন হামলা চালিয়েছে তার সিগন্যাল জার্মানির রামস্টেইট ঘাঁটি হয়ে আমেরিকায় পৌঁছেছে। এ ছাড়া, ওই ঘাঁটির মাধ্যমে আমেরিকায় বসে এসব হামলা নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এর সার্বিকভাবে জার্মানির ওই ঘাঁটিতে মোতায়েন অপারেটররা পুরো বিষয়টিতে অংশ নেন।

গত ৩ জানুয়ারি ভোররাতে ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে ড্রোন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে ইরানের কুদস ফোর্সের সাবেক কমান্ডার লেঃ জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যা করে সন্ত্রাসী ও দখলদার মার্কিন সেনারা। ওই হামলায় ইরাকের জনপ্রিয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হাশদ আশ-শাবি’র উপ প্রধান আবু মাহদি আল-মুহানদিস’সহ মোট ১০ জন শহীদ হন। (সূত্র : পার্সটুডে)


আরো সংবাদ