০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

অবশেষে জয়ের দেখা পেল বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা

অবশেষে জয়ের দেখা পেল বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা - ছবি : সংগৃহীত

উয়েফা নেশন্স লিগে যেন জিততে ভুলে গিয়েছিল বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। প্রথম চার ম্যাচে যে একটিও জয় ছিল না বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের। দুই ড্র আর দুই হারে গ্রুপে অবস্থান ছিল তলানিতে। অবশেষে পঞ্চম ম্যাচে এসে জয়ের দেখা পেল তারা।

প্যারিসে জাতীয় স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার উয়েফা নেশন্স লিগ ‘এ’ লিগের ১ নম্বর গ্রুপের ম্যাচে অস্ট্রিয়াকে ২-০ গোলে হারিয়েছে গতবারের চ্যাম্পিয়নরা। ফ্রান্সের হয়ে গোল দুটি করেন কিলিয়ান এমবাপ্পে ও ওলিভার জিরুড।

চোটের ছোবলে দীর্ঘ সময়ের জন্য ছিটকে গেছেন পল পগবা। কিছুদিন আগে একই কারণে মাঠের বাইরে চলে গিয়েছিলেন করিম বেনজেমা। এই দুইজন সহ চোটের ধাক্কায় নিয়মিত সদস্যের অনেককে ছাড়া খেলতে নামে ফ্রান্স।

ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়ে জোরাল শটে অস্ট্রিয়ার জালে বল পাঠান এমবাপ্পে। তবে অফসাইডের কারণে গোল বাতিল হয। শুরুতেই প্রতিপক্ষ শিবিরে ভীতি ছড়ানোর পর একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে ফরাসিরা, সুযোগও আসতে থাকে। কিন্তু গোলটাই শুধু পাচ্ছিলো না তারা।

২৬তম মিনিটে দারুণ নৈপুণ্যে সুবর্ণ সুযোগ তৈরি করেও কাজে লাগাতে পারেননি এমবাপ্পে। ডি-বক্সে ঢোকার মুখে জিরুদের সঙ্গে ওয়ান টু খেলে দুই ডিফেন্ডারের মধ্যে দিয়ে আরেকটু এগিয়ে গোলরক্ষককে একা পেয়েও দুর্বল শট নেন পিএসজি তারকা। পরের মিনিটে আবারো হতাশ করেন তিনি, এবার তার কোনাকুনি শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

৩৫তম মিনিটে ডাবল সেভে অস্ট্রিয়াকে গোল হজম করা থেকে রক্ষা করেন গোলরক্ষক পাত্রিক পেনৎস। বিরতির আগে গতিতে আরো একবার ভীতি ছড়ান এমবাপ্পে। সবাইকে পেছনে ফেলে বক্সে ঢুকে গোলরক্ষককেও কাটান তিনি। কিন্তু দুরূহ কোণ থেকে শট নেয়ার জায়গা করতে পারেননি, পাস বাড়ান বক্সের মাঝামাঝি। লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নিয়ে হতাশা বাড়ান মিডফিল্ডার ইউসুফ ফোফানা। তাই গোল শূন্য সমতায় প্রথমার্ধ শেষ করতে হয় স্বাগতিকদের।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোলের দেখা মিলে যায় ফরাসিদের। ৫৬তম মিনিটে চমৎকার গোলে দলকে এগিয়ে নেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। জিরুডের পাস ধরে একজনকে কাটিয়ে আরেক জনের বাধা এড়িয়ে বক্সে ঢুকে জোরাল শটে অস্ট্রিয়ার জালে বল পাঠান পিএসজি ফরোয়ার্ড। ১-০ গোলে এগিয়ে যায় ফ্রান্স।

৬৫তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অলিভার জিরুড। ডান প্রান্ত থেকে গ্রিজমানের দারুণ ক্রস ডি-বক্সে লাফিয়ে হেডে গোল করেন এসি মিলান স্ট্রাইকার।

বাকি সময়ে কেউই নিশ্চিত আর কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। তাই ২-০ গোলের স্বস্তির জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে দিদিয়ে দেশমের শিষ্যরা।

এই জয়ে নেশন্স লিগের শীর্ষ স্তরে টিকে থাকার আশা বাঁচিয়ে রাখল বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। অস্ট্রিয়াকে হারিয়ে তলানি থেকে উঠে এলো ফ্রান্স। পাঁচ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে তারা। নিয়ম অনুযায়ী, প্রতিটি লিগের প্রতিটি গ্রুপের তলানির দলকে নেমে যেতে হবে নিচের সারির লিগে। ফলে, আগামী রাউন্ডে নিশ্চিত হবে ফ্রান্স ও অস্ট্রিয়ার (৪ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে) মধ্যে কারা টিকে থাকবে আর কারা নেমে যাবে ‘বি’ লিগে।

এই গ্রুপের শীর্ষে থেকে সেমিফাইনালে ওঠার লড়াইটাও বেশ জমে উঠেছে। দিনের অন্য ম্যাচে ক্রোয়েশিয়া নিজেদের মাঠে ২-১ গোলে হারিয়ে দিয়েছে ডেনমার্ককে। পাঁচ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে এখন শীর্ষে ক্রোয়াটরা। ১ পয়েন্ট কম নিয়ে দুইয়ে ডেনিশরা।

শেষ রাউন্ডে ক্রোয়েশিয়া খেলবে অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে আর ডেনমার্ক মুখোমুখি হবে ফ্রান্সের।

 


আরো সংবাদ


premium cement