Naya Diganta

বাহরাইনে ভয়াবহ হামলার পরিকল্পনা ফাঁস, গ্রেফতার বহুৎ

বাহরাইনে উগ্রবাদী হামলার ছক বানচাল করলো নিরাপত্তা বাহিনী। কয়েকজন উগ্রবাদী গ্রেফতার করা হয়। স্থানীয় মিডিয়ার দাবি, এই পরিকল্পনার পিছনে ছিল ইরান।

বড়সড় হামলার ছক করেছিল উগ্রবাদীরা। কিন্তু নিরাপত্তা বাহিনী সক্রিয় হয়ে তাদের ঘাঁটিতে অভিযান চালিয়ে অনেক উগ্রবাদীকে গ্রেফতার করেছে। বিপুল পরিমাণে বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে।

স্থানীয় মিডিয়ার দাবি, বিদেশি কূটনীতিক ও নাগরিকদের হত্যার পরিকল্পনা করেছিল উগ্রবাদীরা। এর পিছনে ছিল ইরানের মদত।

মিডিয়ার রিপোর্ট বলছে, ১৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তার মধ্যে নয় জন ইরানে আছেন।

বাহরাইন সরকার এখনো উগ্রবাদীদের গ্রেফতার নিয়ো কোনো মন্তব্য করেনি। সরকারি টিভিতেও কিছু দেখানো হয়নি। কিন্তু সৌদি আরবের সরকারি টিভিতে এর ফুটেজ দেখানো হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, নিরাপত্তা বাহিনী তাদের আস্তায় হানা দিয়েছে। সেখানে অ্যাসল্ট রাইফেল ও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হচ্ছে। ইরানের সরকারি মিডিয়াও গ্রেফতারের খবর করেছে। তবে সেখানে সরকারের তরফে কিছু জানানো হয়নি।

সৌদির এক টিভি রিপোর্টারের দাবি, ইরানের জেনারেল কাসেম সোলেইমানি হত্যার প্রতিশোধ নিতে চেয়েছিল উগ্রবাদীরা। গত জানুয়ারিতে বাগদাদে মার্কিন ড্রোন হানায় সোলেইমানির মৃত্যু হয়।

মার্কিন নৌবাহিনীও বাহরাইনে আছে। তারা এখান থেকেই মধ্যপ্রাচ্যের সমুদ্রে নজরদারি চালায়। অতীতে তাদের উপর আক্রমণ হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন নৌবাহিনীর কর্তারা।

সম্প্রতি ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করেছে বাহরাইন। সংযুক্ত আরব আমিরাতও করেছে। ইরান তার তীব্র সমালোচনা করেছে। তা নিয়ে ওই অঞ্চলে উত্তেজনা আছে।

এদিকে বাহরাইনের শিয়ারা মনে করেন সুন্নিরা তাদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে দেখেন। ২০১১-তে শিয়ারা গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনও করেছিল। কিন্তু সৌদি ও আমিরাতের সেনার সাহায্যে সেই আন্দোলন দমন করা হয়। ডয়চে ভেলে