২৯ নভেম্বর ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

এয়ার অ্যাস্ট্রা এয়ারলাইন্স নভেম্বরে উড়ার পরিকল্পনা

এয়ার অ্যাস্ট্রা এয়ারলাইন্স নভেম্বরে উড়ার পরিকল্পনা -

আকাশপথে আরো একটি নতুন বেসরকারি এয়ারলাইন্স প্রতিষ্ঠান যুক্ত হতে যাচ্ছে। সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি বছরের নভেম্বর মাসে এয়ার অ্যাস্ট্রা নামক এয়ারলাইন্স প্রতিষ্ঠান তাদের ফ্লাইট অপারেশন শুরুর পরিকল্পনা চূড়ান্ত করার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যে চারটি লিজের উড়োজাহাজ (এটিআর ৭২-৬০০ মডেল) সংগ্রহ করার চেষ্টা চলছে। গতকাল শুক্রবার রাতে অভ্যন্তরীণ রুটে ডানা মেলার অপেক্ষায় থাকা বেসরকারি বিমান পরিবহন সংস্থা এয়ার অ্যাস্ট্রার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইমরান আসিফ নয়া দিগন্তকে বলেন, আমরা অক্টোবর অথবা নভেম্বরের মাসের প্রথম দিকে ফ্লাইট শুরুর পরিকল্পনা নিয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছি। এই লক্ষ্য মোট চারটি এয়ারক্র্যাফট সংগ্রহের চেষ্টা চলছে। এর মধ্যে লিজের দু’টি এয়ারক্র্যাফট সেপ্টেম্বরে এবং বাকি দুটি অক্টোবরে আসবে বলে আশা করছি। তিনি বলেন, প্ল্যান অনুযায়ী এসব এয়ারক্র্যাফট দেশে আসার পর এনওসির (সার্টিফিকেশন) কাজ শুরু করব। এর জন্য ৪-৬ সপ্তাহ পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। তাই সবকিছু মিলিয়ে আশা করছি নভেম্বরে ফ্লাইট অপারেশনে যেতে পারব।
জেট ফুয়েলের দামবৃদ্ধির বিষয়ে জানতে চাইলে এভিয়েশন এক্সপার্ট ইমরান আসিফ নয়া দিগন্তকে বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের মূল্য বাড়লে আমাদেরকে সেভাবেই সমন্বয় করেই ফ্লাইট চালাতে হবে। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত পদ্মা সেতু চালু হওয়ার কারণে বরিশাল ও যশোর রুটে ফ্লাইট চলাচলে কিছুটা বিরূপ প্রভাব পড়েছে। তবে বাকি রুটগুলোতে এখনো কিন্তু যাত্রীর চাহিদা অনেক। আমি আজ (শুক্রবার) কক্সবাজারে এসেছি। ঢাকা থেকে যে ফ্লাইটে এসেছি ওই ফ্লাইট ছিল ফুল। টিকিট ফেয়ারও যথেষ্ট।
এয়ার অ্যাস্ট্রার পক্ষ থেকে যাত্রীদের আপনি কি মেসেজ দেবেন- এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আসলে ডমেস্টিক মার্কেটটি ছোট্ট। তারপর আমরা আশা করছি আমাদের এয়ার অ্যাস্ট্রার ফ্লাইট অপারেশন শুরু হলে যাত্রীদের পরিচ্ছন্ন সেবা দেয়ার চেষ্টা থাকবে। আপনাদের এয়ারলাইন্স ব্যবসা পরিচালনা শুরুর লক্ষ্য বেসরকারি বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কী ধরনের সেবা পাচ্ছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের নিজেদের সীমাবদ্ধতা রয়েছে। তারপরও ফ্লাইট অপারেশনে বেবিচকের কাছ থেকে যথেষ্ট সহযোগিতা পাচ্ছি। ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পার্কিং নিয়ে কিছুটা সমস্যা রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ আন্তরিক বিধায় বিকল্প হিসেবে আমাদেরকে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিমানবন্দরে পার্কিং করার ব্যবস্থা করার কথা বলেছেন। মোট কথা তাদের কাছ থেকে সম্মতি পাচ্ছি- এটাই যথেষ্ট।
উল্লেখ্য ২০২১ সালে এয়ার অ্যাস্ট্রা এয়ারলাইন্স প্রতিষ্ঠান হিসেবে সিভিল এভিয়েশন অথরিটির কাছে তালিকাভুক্তির আবেদন করে ওই বছরের ৪ নভেম্বর এনওসি পায়। বর্তমানে বেসরকারিভাবে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স ও নভোএয়ার অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করছে। অপর দিকে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সও অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট চালাচ্ছে। যদিও বেসরকারি এয়ারলাইন্স রিজেন্ট এয়ারওয়েজ জাঁকজমকভাবে অপারেশন শুরুর পর হঠাৎ করেই প্রতিষ্ঠানটি তাদের ফ্লাইট অপারেশন গুটিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নেয়। যা এখনো অব্যাহত রয়েছে বলে এভিয়েশন সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

 


আরো সংবাদ


premium cement