Naya Diganta

পুলিশের তাড়া খেয়ে বাদিকে কুপিয়ে আহত করল ধর্ষণ মামলার আসামি

পুলিশের তাড়া খেয়ে বাদিকে কুপিয়ে আহত করল ধর্ষণ মামলার আসামি

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে ধর্ষণ মামলার আসামি দেলোয়ার হোসেন বাবু (৩৫) পুলিশের তাড়া খেয়ে মামলার বাদিকে দা দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছেন। এ সময় ধর্ষণ মামলার বাদি ও তার চাচা হামলায় শিকার হন। এ ঘটনায় আসামি দেলোয়ার হোসেন বাবুকে আটক করেছে পুলিশ। কটিয়াদী পৌরসভার তেলিচাড়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় আহতরা হলেন কটিয়াদী পৌরসভার চেলিচাড়া গ্রামের মৃত জজ মিয়ার বড় ছেলে ও ধর্ষণ মামলার বাদি মো: ফারুক মিয়া (২১) ও তার চাচা মো: ইউসুফ আলী (৪০)।

আটকৃত দেলোয়ার হোসেন বাবু পৌরসভার তেলিচাড়া গ্রামের মৃত শক্কুর আলীর ছেলে ও ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি আজিজের বোন জামাই।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, বুধবার বিকেলে কটিয়াদী পৌরসভার চেলিতাড়া গ্রামে ধর্ষণ মামলার দুই নাম্বার আসামি দেলোয়ার হোসেন বাবু নিজ ঘরে অবস্থান করছেন এমন সংবাদ পেয়ে পুলিশ দ্রুত আসামিকে গ্রেফতার করার জন্য বাবুর বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় ধর্ষণ মামলার আসামি দেলোয়ার হোসেন বাবু পুলিশের তাড়া খেয়ে ঘরের পিছন দিয়ে বের হয়ে বাদির ওপর দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালান। একই সাথে বাদির চাচা ইউসুফ আলীকেও ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কোপান তিনি।

পরিবার সূত্রে আরো জানা যায়, পুলিশ ঘটনার সাথে সাথেই আসামি দেলোয়ার হোসেনকে দেশীয় অস্ত্রসহ আটক করে কিশোরগঞ্জ কারাগারে পাঠান। এ দিকে আহত অবস্থায় কটিয়াদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন বাদি মো: ফারুক মিয়া ও তার চাচা মো: ইউসুফ আলী। বাদির চাচার হাতে চারটি সেলাই দেখা গেছে। বর্তমানে তারা দু’জনই চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

মামলার বাদি ও আহত মো: ফারুক মিয়া জানান, ‘পুলিশের তাড়া খেয়ে বাবু আমার ওপর ক্ষিপ্ত হন। পরে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে কোপাতে এলে আমি সরে যাই। পরে আমার চাচাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হাতের মধ্যে কুপিয়ে আহত করে। পুলিশ এসে আমাদের উদ্ধার করে।’

কটিয়াদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম শাহাদাত হোসেস জানান, এ ঘটনায় ধর্ষণ মামলার আসামিকে কিশোরগঞ্জ জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

আহতের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, ‘পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’