Naya Diganta

রাজধানীতে মশার উৎপাত চলছেই

রাজধানীর মশা নিয়ন্ত্রণে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নানা উদ্যোগ নিলেও আশানুরূপ ফল মিলছে না। মশার উৎপাত চলছেই। রাতের পাশাপাশি দিনেও মশার অত্যাচার থেকে রেহায় পেতে মশারি টানাতে হচ্ছে। এ কারণে করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গু আতঙ্কে ভুগছে নগরবাসী।
বিশ্বব্যাপী চলা মহামারীর প্রকোপে সর্বত্র মৃত্যুভয় আর আতঙ্ক চলছে। দেশে প্রতিদিন করোনা আক্রান্ত হয়ে ৩০ থেকে ৫০ জনের মতো মানুষ মারা যাচ্ছে। এর বেশির ভাগই ঢাকার বাসিন্দা। এ কারণে করোনার আতঙ্কে ভুগছে নগরবাসী। এর মধ্যে চলছে বর্ষা মৌসুম। এ মৌসুমে এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। গত বছর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দুই শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়। অসুস্থ হন আরো লক্ষাধিক মানুষ। এ বছরও বেশকিছু মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। তবে তা এখনো আশঙ্কার পর্যায়ে যায়নি। আগামী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হওয়ার মৌসুম রয়েছে। এ কারণে আতঙ্ক এখনো রয়ে গেছে।
রাজধানীর বিভিন্ন খাল পরিদর্শন করে দেখা গেছে, প্রায় সব খালই ময়লা-আবর্জনায় ভর্তি। ওয়াসা এসব খাল পরিষ্কারের দাবি করলেও বাস্তবে তার কোনো প্রমাণ দেখা যায় না। এ ছাড়া সম্প্রতি কোরবানির পশুর বর্জ্য ও রক্ত ড্রেনে চলে যাওয়ায় পানি দূষিত হয়ে মশার উৎপাদন বেড়েছে। তবে স্বাস্থ্যবিশেষজ্ঞদের মতে, ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশা ময়লা পানিতে না হয়ে পরিষ্কার পানিতে জন্ম নেয়। এ কারণে পরিষ্কার পানি তিন দিনের বেশি জমা না রাখার পরামর্শ দিয়েছেন তারা।
এডিস মশার বিস্তার রোধে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নানা উদ্যোগ নিয়েছে। উত্তর সিটি করপোরেশন মে ও জুন মাসে প্রতিটি ওয়ার্ডে দুই দফা চিরুনি অভিযান, হাসপাতাল এলাকায় দুই দফা বিশেষ পরিচ্ছন্নতা অভিযান চালিয়েছে। এ ছাড়া নিয়মিত ওষুধ প্রয়োগ অব্যাহত রয়েছে। একইভাবে দক্ষিণ সিটি করপোরেশন জলাশয়-নর্দমা পরিষ্কার, ওষুধ প্রয়োগের সময় ও মাত্রা বৃদ্ধি, লোকবল বৃদ্ধিসহ নানা উদ্যোগ নিয়েছে। কিন্তু কিছুতেই সুফল মিলছে না। ওষুধ প্রয়োরের পর মশার উৎপাত সাময়িক কমলেও দুই দিন না যেতেই আবার একই অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে।
এ দিকে মশার উৎপাত অব্যাহত থাকায় ডেঙ্গু থেকে নগরবাসীকে সুরক্ষা দিতে আজ থেকে আবার প্রতিটি ওয়ার্ডে বিশেষ পরিছন্নতা অভিযান (চিরুনি অভিযান) শুরু করতে যাচ্ছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। আগামী ২০ আগস্ট পর্যন্ত এ অভিযান চলবে। চিরুনি অভিযান সর্বাত্মকভাবে সফল করতে ডিএনসিসি মেয়র মো: আতিকুল ইসলাম ওয়ার্ড কাউন্সিলর, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর, গণমাধ্যমকর্মী ও ডিএনসিসির সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের স্থাপনার ভেতরে-বাইরে, আশপাশে তিন দিনের বেশি জমা পানি থাকবে, তত দিন পর্যন্ত আমরা ডেঙ্গু থেকে সুরক্ষিত নই। নগরবাসীর প্রতি আমার আহ্বান, বাড়ি বা স্থাপনার ভেতরে, বাইরে, আশপাশে কোথাও পানি জমে থাকলে এখনই ফেলে দিন। তিন দিনে এক দিন, জমা পানি ফেলে দিন। ডেঙ্গু থেকে আপনি সুরক্ষিত থাকুন, আপনার পরিবার, শহর ও রাষ্ট্রকে সুরক্ষিত রাখুন।