২০ জানুয়ারি ২০২০

চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড : হতাহত শ্রমিকদের জন্য আর্থিক সহায়তার ঘোষণা শ্রম মন্ত্রণালয়ের

চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড
চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড : হতাহতের জন্য আর্থিক সহায়তার ঘোষণা - ছবি : নয়া দিগন্ত

রাজধানীর চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন শ্রমপ্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান। সেই সাথে এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকদের জন্য শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে আর্থিক সহায়তার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার এ ঘোষণা দেয়া হয়। ঘোষণা অনুযায়ী নিহত শ্রমিকদের প্রত্যেকে পাবেন ১ লাখ ও আহতরা পাবেন ৫০ হাজার টাকা।

রাজধানীর চকবাজারের চুড়িহাট্টায় গত রাতের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ৭০ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এঘটনায় আহত হয়েছেন আরো অর্ধশতাধিক। ফায়ার সার্ভিসের ৩৭টি ইউনিটের চেষ্টায় আগুন এখন নিয়ন্ত্রণে।

এখনো কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসসহ বিভিন্ন উদ্ধারকর্মীরা। তবে আগুন লাগার প্রকৃত কারণ আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো জানানো হয়নি।
বুধবার রাত ১০টার পর চকবাজারের নন্দকুমার দত্ত রোডের শেষ মাথায় মসজিদের পাশে ৬৪ নম্বর হোল্ডিংয়ের ওয়াহিদ ম্যানসন থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে বলে জানানো হয়।

আগুনের সূত্রপাত নিয়ে ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনালের আলী আহাম্মেদ খান বলেন, সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত। তবে, জায়গাটা সংকীর্ণ হওয়ায় জনবল ও সরঞ্জামাদি নিয়ে কাজ শুরু করতে সমস্যায় পড়তে হয়েছিল। এছাড়া পানির সঙ্কটেও পড়তে হয়েছিল। তবে, আগুন এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

এলাকাবাসী বলছেন, ওই ভবনের কারখানা থেকে আগুন ছড়িয়েছে। কারো কারো মতে, বিকট শব্দে সিলিন্ডার বিস্ফোরণের পর আগুন ছড়ায়। ওয়াহিদ ম্যানসনের নিচতলায় প্লাস্টিকের গোডাউন ছিল। ওপরে ছিল পারফিউমের গোডাউন।

খবর পেয়ে এ আগুন নেভাতে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় ফায়ার সার্ভিসের ১৩টি স্টেশনের ৩৭টি ইউনিট। এলাকাবাসীর সহযোগিতায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা রাত ৩টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন বলে জানায় ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুম।

যে ভবনে আগুন লেগেছিল সেখানে আগুন দেখা না গেলেও সকাল আটটা নাগাদ ধোঁয়া দেখা যাচ্ছিল। তবে এর মধ্যে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ভবনের ভেতরে তল্লাশি চালানোর চেষ্টা করছিলেন ভেতরে আর কোনো লাশ আছে কিনা বা কেউ আটকে আছেন কি-না সেটি নিশ্চিত হতে।


আরো সংবাদ




krunker gebze evden eve nakliyat