০৩ জুন ২০২০

ওসি মোয়াজ্জেমের ৮ বছরের কারাদণ্ড

-

ফেনীর মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির জবানবন্দী ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে সোনাগাজী মডেল থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে ৮ বছরের কারাদণ্ড ও ১৫ লাখ টাকা জরিমানার রায় দিয়েছে ট্রাইব্যুনাল।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আস-শামস জগলুল হোসেন এ রায় ঘোষণা করেন। বাংলাদেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার প্রথম রায় এটি।

মাদরাসা অধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দৌলার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ এনেছিলেন নুসরাত। নুসরাতের মা শিরিন আক্তার বাদী হয়ে সোনাগাজী থানায় অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এরপর অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই মামলায় নুসরাতের বক্তব্য গ্রহণের সময় তা ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে।

এর জের অধ্যক্ষ সিরাজের নির্দেশে ধরে গত ৬ এপ্রিল পরীক্ষা দিতে গেলে নুসরাতকে পার্শ্ববর্তী একটি ভবনের ছাদে ডেকে নিয়ে গায়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয় কয়েকজন। ১০ এপ্রিল ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নুসরাত মারা যান। হত্যা মামলায় ১৬ জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত।

অন্য দিকে গত ১৫ এপ্রিল মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদন করেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। আদালত তার জবানবন্দি নিয়ে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮ এর ২৬, ২৯ ও ৩১ ধারায় করা অভিযোগটি পিটিশন মামলা হিসেবে গ্রহণ করেন। পরে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেন আদালত।

গত ২০ নভেম্বর রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য ২৮ নভেম্বর দিন ধার্য করেন বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আস-শামস জগলুল হোসেন। এ মামলায় ১২ জন সাক্ষী আদালতে সাক্ষ্য দেন।


আরো সংবাদ