১৫ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১, ৮ মহররম ১৪৪৬
`

সেশনজট কাটিয়ে ওঠার উপায়!

-

করোনার কারণে এত দিন ধরে বন্ধ হয়ে আছে সব ধরনের শিক্ষাকার্যক্রম। যদিও কিছু প্রতিষ্ঠান অনলাইন শিক্ষাকার্যক্রম চালু করেছে। কিন্তু দেশের বেশির ভাগ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নানা সমস্যায় এ অনলাইন শিক্ষাকার্যক্রমে যেতে পারছে না।
করোনা-পরবর্তী শিক্ষা খাতের এ ধাক্কা বা ভয়াল ক্ষতি পুষিয়ে নিতে অনেক বেগ পেতে হবে। তখন শিক্ষা খাতে বিশেষ নজর দিতে হবে। চালু করতে হবে নতুন নিয়মকানুন, প্রণয়ন করতে হবে নতুন নীতিমালা।
করোনা তাণ্ডবের কারণে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সেশনজট নামের দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে গেছে। উচ্চশিক্ষা খাতে তথা বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সেশনজট একটা ভয়াবহ সমস্যা। দেখা যায়Ñ সেশনজটের কারণে চার বছরের অনার্স শেষ করতে লেগে যায় ৬-৭ বছর, যা একজন শিক্ষার্থীর ক্যারিয়ার ও চাকরিজীবনে অনেক প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কারণে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সেশনজটের কবলে পড়ত। আগের মতো বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সেশনজটের সেই ভয়াবহতা তেমন একটা নেই। তবে একেবারে বন্ধ হয়নি। এখনো বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টে সেশনজট রয়ে গেছে।
সম্প্রতি মহামারী করোনার প্রভাবে মার্চ থেকে স্থবির হয়ে আছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষাকার্যক্রম। বছরের অর্ধেকের বেশি চলে গেছে অথচ কোনো ক্লাস, কোর্স সম্পন্ন, পরীক্ষা নেয়া কিছুই সম্ভব হয়ে ওঠেনি। তাই সেশনজট নামের এই ব্যাধি রোধ করতে বা কমিয়ে আনতে ছাত্র-শিক্ষক উভয়কেই এগিয়ে আসতে হবে। উভয়কেই হতে হবে আন্তরিক। এ জন্য কোর্সভিত্তিক ক্লাসের সংখ্যা বাড়িয়ে দিতে হবে। যেমনÑ আগে সপ্তাহে একটা কোর্সের ক্লাস দুটো থাকলে, এখন সেখানে চারটা করে ক্লাস দিতে হবে। কোর্সের ক্লাস তিনটা থাকলে সেখানে ছয়টা করে দিতে হবে। এভাবে সব কোর্সে দ্বিগুণের নিয়ম চালু করতে হবে। প্রয়োজন হলে আরো বেশি করে দিতে হবে।
এ জন্য দরকার হলে ছুটির দিনগুলোতে (শুক্রবার, শনিবার) এবং বন্ধের বিশেষ দিনগুলোতেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রেণী কার্যক্রম চালু রাখতে হবে। সময়মতো কোর্সভিত্তিক পরীক্ষাগুলো নিয়ে নিতে হবে এবং যথাসময়ে ফল প্রকাশ করতে হবে।
এ প্রক্রিয়া অনুসরণ ও প্রয়োগের মাধ্যমে ছাত্র-শিক্ষক উভয়ের সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে আমরা শিক্ষাব্যবস্থায় আবারো প্রাণ ফিরিয়ে আনতে পারব বলে আশা করা যায়। তখন সেশনজটের হাত থেকে অনেকাংশে রেহাই পাওয়া যেতে পারে। হ
লেখক : শিক্ষার্থী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
emranemon4321@gmail.com


আরো সংবাদ



premium cement