০৫ আগস্ট ২০২০

‘জনসন ফ্যানটাস্টিক ম্যান, কর্বিন ভালো নয়'

24tkt

ব্রিটেনের নির্বাচনের আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প সরাসরি প্রধানমন্ত্রী জনসনের পক্ষে সওয়াল করলেন। বিরোধী নেতা কর্বিন ও ব্রেক্সিট চুক্তির কড়া সমালোচনাও করেছেন তিনি। কর্বিন ট্রাম্পের বিরুদ্ধে নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগ এনেছেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এক রেডিও সাক্ষাৎকারে কোনো রাখঢাক না করে ব্রিটেনের নির্বাচনে বিভিন্ন দলের নেতাদের সম্পর্কে নিজের রায় দিলেন। ব্রেক্সিট পার্টির প্রধান ও ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত নাইজেল ফারাজ নিজে সেই সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে ‘ফ্যানটাস্টিক ম্যান' বলে প্রশংসা করেন ট্রাম্প৷ বাকিরা যা করতে পারে না, জনসন সেটাও করতে চান বলে তিনি মনে করেন৷ ট্রাম্প বলেন, বর্তমান সময়কালের জন্য জনসন আদর্শ মানুষ।

ট্রাম্প এ প্রসঙ্গে ফারাজকে জনসনের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করার পরামর্শ দেন৷ তিনি বলেন, সে ক্ষেত্রে তাঁদের যৌথ শক্তি ‘অদম্য' হবে৷ ফারাজ মার্কিন প্রেসিডেন্টকে আশ্বস্ত করে বলেন, তিনি জনসনের পেছনেই থাকবেন। তবে তার পূর্বশর্ত হিসেবে জনসনকে ব্রেক্সিট চুক্তি পরিত্যাগ করতে হবে৷ ফারাজ আবার চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের পক্ষে সওয়াল করেন৷ তিনি জনসনের সঙ্গে নির্বাচনে বোঝাপড়ার উদ্যোগ নিয়েও এখনো পর্যন্ত কোনো সাড়া পান নি।

ট্রাম্প নিজেও সেই সাক্ষাৎকারে ব্রেক্সিট চুক্তির সমালোচনা করেছেন৷ তাঁর মতে, এর ফলে অ্যামেরিকা ও ব্রিটেনের মধ্যে বাণিজ্যের সম্ভাবনা পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না। ইইউ-র সঙ্গে চুক্তি না থাকলে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য পাঁচ থেকে ছয় গুণ বাড়তে পারে বলে তিনি ইঙ্গিত করেন। তবে এমন ধারণার পেছনে কোনো তথ্য-পরিসংখ্যানের উল্লেখ করেননি ট্রাম্প৷ জনসনের প্রশংসা করেও তাঁর উদ্যোগে স্বাক্ষরিত ব্রেক্সিট চুক্তির সমালোচনা করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট আদৌ তাকে সাহায্য করতে পারলেন কিনা, তা নিয়ে দ্বন্দ্ব থেকে যাচ্ছে।

ব্রিটেনের লেবার দলের নেতা জেরেমি কর্বিন সম্পর্কে অত্যন্ত কড়া মন্তব্য করেন ট্রাম্প৷ তাঁর মতে, নির্বাচনে কর্বিনের জয় হলে তা ব্রিটেনের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর হবে। ট্রাম্প বলেন ‘‘তিনি আপনাদের খারাপ পথে নিয়ে যাবেন৷'' ট্রাম্পের এমন মন্তব্যের পর জেরেমি কর্বিন এক টুইট বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে ব্রিটেনের নির্বাচনে সরাসরি হস্তক্ষেপের প্রচেষ্টার অভিযোগ করেন। তার মতে, বন্ধু জনসনকে নির্বাচনে জয়লাভ করাতে ট্রাম্প এমন মন্তব্য করছেন। উল্লেখ্য, কর্বিন ভোটারদের বার বার সতর্ক করে দিয়ে দাবি করছেন, যে জনসন নির্বাচনে জিতলে ব্রিটেনের স্বাস্থ্য পরিষেবা কাঠামো মার্কিন বেসরকারি কোম্পানিগুলির হাতে চলে যাবে৷ ট্রাম্প অবশ্য এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

ব্রিটেনের জনমত প্রাভাবিত করার অভিযোগ শুধু ট্রাম্পের বিরুদ্ধেই আনা হচ্ছে না। তাঁর পূর্বসুরি বারাক ওবামা ব্রেক্সিট সংক্রান্ত গণভোটের আগে ব্রিটেনের মানুষকে ইউরোপীয় ইউনিয়নে থেকে যাবার পরামর্শ দিয়েছিলেন। তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেছিলেন, অ্যামেরিকার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তি করতে হলে ব্রিটেনকে বাকিদের পেছনে দাঁড়াতে হবে।

সূত্র : ডয়েচ ভেলে


আরো সংবাদ

হিজবুল্লাহর জালে আটকা পড়েছে ইসরাইল! (৩৬১৭৯)আবারো তাইওয়ান দখলের ঘোষণা দিল চীন (১৪৮৮১)মরুভূমির ‘এয়ারলাইনের গোরস্তানে’ ফেলা হচ্ছে বহু বিমান (১২২৫৯)হামলায় মার্কিন রণতরীর ডামি ধ্বংস না হওয়ার কারণ জানালো ইরান (৮৩১৯)সিনহা নিহতের ঘটনায় পুলিশ ও ডিজিএফআই’র পরস্পরবিরোধী ভাষ্য (৭২৫৯)সহকর্মীর এলোপাথাড়ি গুলিতে ২ বিএসএফ সেনা নিহত, সীমান্তে উত্তেজনা (৬৯০২)চীনের বিরুদ্ধে গোর্খা সৈন্যদের ব্যবহার করছে ভারত : এখন কী করবে নেপাল? (৫০৩৬)বিবাহিত জীবনের বেশিরভাগ সময় জেলে এবং পালিয়ে থাকতে হয়েছে বাবুকে : ফখরুল (৪৭১১)করোনায় আক্রান্ত এমপিকে হেলিকপ্টারে ঢাকায় আনা হয়েছে (৪৪৩৩)তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে : আবহাওয়া অধিদপ্তর (৪৩৫৩)