২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩০, ১৩ জিলহজ ১৪৪৫
`

বিশ্ব উষ্ণায়ন কমাতে জি-২০ দেশগুলোকে যেসব পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান ঢাকার

বিশ্ব উষ্ণায়ন কমাতে জি-২০ দেশগুলোকে যেসব পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান ঢাকার - ছবি : সংগৃহীত

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রবণতা কমাতে এবং জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় অর্থায়ন ও প্রযুক্তি হস্তান্তরের বৈশ্বিক প্রতিশ্রুতি পূরণের জন্য জি-২০ দেশগুলোকে সংশোধনমূলক পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি অর্জনের জন্য পর্যাপ্ত তহবিল বরাদ্দ এবং বাস্তবায়নের উপায় বের করার জন্য জি-২০ নেতৃত্বের প্রতি আহ্বান জানান।

বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লিতে জি-২০ পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে (জি-২০এফএমএম) এ কথা বলেন মোমেন।

তিনি বলেন, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘জিরো-টলারেন্স’ নীতি এই অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে অবদান রাখছে।

বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের দীর্ঘস্থায়ী উপস্থিতির কারণে ক্রমবর্ধমান নিরাপত্তা হুমকি এড়াতে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে দ্রুত প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী সমসাময়িক মুদ্রাস্ফীতি, খাদ্য ও জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি, বাণিজ্য ও সরবরাহ শৃঙ্খলে ব্যাঘাত এবং আন্তর্জাতিক আর্থিক কাঠামোতে অস্থিতিশীলতা বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জের প্রভাব নিয়েও আলোচনা করেন।

সাইডলাইনে মিটিং 
এর আগে সকালে, ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর জি-২০এফএমএম এর আগে রাষ্ট্রপতি ভবনের সাংস্কৃতিক কেন্দ্র প্রাঙ্গণে মোমেনকে স্বাগত জানান।

বিকেলে মোমেন জি-২০এফএমএম -এর সাইডলাইনে ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ক্যাথরিন কোলোনা, স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জোসে ম্যানুয়েল আলবারেস এবং দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র বিষয়ক উপমন্ত্রী লি দো-হুনের সঙ্গে দেখা করেন।

বৈঠকের সময়, তারা দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতাকে আরো গভীর করার এবং চলমান ভূ-রাজনৈতিক সমস্যা মোকাবিলার উপায় ও ধরন নিয়ে আলোচনা করেন।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অন্যান্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে একটি গ্রুপ কলে যোগ দেন।

এছাড়াও, তিনি মিসর, রাশিয়া, সৌদি আরব, সিঙ্গাপুর, তুর্কিয়ে, যুক্তরাজ্য, জাপান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাথেও অনানুষ্ঠানিক আলাপচারিতা করেছিলেন।

মোমেনের ভূরাজনীতি এবং ভূ-কৌশলের উপর রাইসিনা সংলাপের অষ্টম আসরের উদ্বোধনী অধিবেশনে যোগ দেয়ার আশা করা হচ্ছে, ভারতের প্রধান সম্মেলন, যা প্রধানমন্ত্রী মোদি উদ্বোধন করবেন।

সংলাপের উদ্বোধনের পর তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দেয়া নৈশভোজে যোগ দেবেন।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার ভারতীয় প্রতিপক্ষের আমন্ত্রণে জি-২০ এফএমএম-এ যোগ দিতে নয়াদিল্লিতে রয়েছেন।

বৈঠকে জি-২০ সদস্য ও অতিথি দেশগুলোর প্রায় সব পররাষ্ট্রমন্ত্রী অংশ নেন।

সূত্র : ইউএনবি


আরো সংবাদ



premium cement
ইসরাইলি কারাগারে নিহত ফিলিস্তিনি বন্দীর সংখ্যা বেড়ে ৫৪ : কমিশন খুলনায় বজ্রপাতে ২ যুবকের মৃত্যু শেখ হাসিনার দিল্লি সফরে যেসব বিষয় আলোচনায় আসতে পারে বাজেট এখনো পাস হয়নি, অনেক কিছু সংশোধন হতে পারে : অর্থমন্ত্রী রামাফোসা দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট পুনর্নির্বাচিত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন জামায়াতের দায়িত্বশীলদের দেশ পরিচালনার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে : মিয়া গোলাম পরওয়ার বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় মিয়ানমার থেকে গুলি এলে পাল্টা গুলি চালানো হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুপার এইটের লড়াইয়ে মুখোমুখি ভারত-আফগানিস্তান প্রচণ্ড গরমে এবারের হজে সহস্রাধিক মৃত্যু ৪৫ দিন পর উদ্ধার হলো সোনারগাঁয়ের নিখোঁজ দুই স্কুল পড়ুয়া ভাই

সকল