১৬ জুন ২০২৪
`

ভালোবাসার টানে পরিবার ত্যাগ করা প্রমিকাকে ৩৫ টুকরা করলো প্রেমিক

শ্রদ্ধা বারবার বিয়ে করতে চাইতেন বলেই আফতাব তাকে খুন করেন। - ছবি : হিন্দুস্তান টাইমস

সম্পর্ক মেনে না নেয়ায় মুম্বই ছেড়ে দিল্লিতে এসেছিলেন। শেষে প্রেমিকের হাতেই খুন হতে হলেন সেই যুবতীকে। শুধু হত্যা নয়, করা হয়েছে ৩৫ টুকরা। দিল্লির এই ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড সামনে এসেছে আজই। যদিও এই খুন বেশ কয়েকদিন আগেই হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

জানা গিয়েছে, মৃত যুবতীর নাম শ্রদ্ধা। এদিকে খুনের অভিযোগ উঠেছে শ্রদ্ধার লিভ-ইন পার্টনার আফতাব পুনাওয়ালার বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় শ্রদ্ধার পরিবার পুলিশে অভিযোগ করেন। পুলিশ খুনের মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে। অভিযুক্ত আফতাবকে গত শবিনার গ্রেফতার করা হয় বলে জানা গিয়েছে।

শ্রদ্ধা বারবার বিয়ে করতে চাইতেন বলেই আফতাব তাকে হত্যা করেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানান।

জানা যায়, আফতাব আমিন পুনাওয়ালার সাথে দিল্লির মেহরুলিতে থাকতেন শ্রদ্ধা। দু’জনের পরিচয় হয়েছিল মুম্বইতে। সেখানে শ্রদ্ধা একটি কলসেন্টারে কাজ করতেন। তবে আফতাবের সাথে তার সম্পর্ক মেনে নেয়নি শ্রদ্ধার পরিবার। এই আবহে মুম্বই থেকে পালিয়ে দু’জনেই দিল্লিতে গিয়ে একসাথে বসবাস করতে শুরু করেন। তবে পরিবারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ ছিল শ্রদ্ধার। বিগত বেশ কয়েকদিন ধরে মেয়ে ফোন না ধরায় শ্রদ্ধার বাবা দিল্লি আসেন। এসে দেখেন মেহরুলির যেই ফ্ল্যাটে মেয়ে থাকতেন, সেখানে তালা ঝুলছে। এরপর পুলিশের দ্বারস্থ হন শ্রদ্ধার বাবা।

পুলিশ অভিযুক্ত আফতাবকে শনিবার গ্রেফতার করে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানেত পারে, শ্রদ্ধাকে তিনি খুন করেন। এরপর শ্রদ্ধার লাশ ৩৫ টুকরা করে বিভিন্ন স্থানে ফেলে দেন। ১৮ দিন ধরে দেহের অংশ ফেলার কাজ করেন আফতাব। প্রতিদিন রাত ২টার সময় বেরিয়ে এই কাজ করেন তিনি।

বর্তমানে শ্রদ্ধার সব দেহাংশ খোঁজার কাজ চালাচ্ছে পুলিশ। আফতাবকে আরো জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আফতাব দাবি করেন, তাদের মধ্যে প্রায়-ই ঝগড়া লেগে থাকত। এদিকে বিয়ের জন্য আফতাবের ওপর চাপ সৃষ্টি করছিলেন শ্রদ্ধা। এই কারণেই নাকি প্রেমিকাকে খুন করে আফতাব।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস


আরো সংবাদ



premium cement