২১ মে ২০২৪, ০৭ জৈষ্ঠ ১৪৩১, ১২ জিলকদ ১৪৪৫
`


আগডুম বাগডুম : কবিতা

-

সবুজ পাতার ফাঁকে
সফিউল্লাহ আনসারী

গাছের সবুজ পাতার ফাঁকে
ছোট্ট পাখি ডাকছে মাকে
চিচিক মিচিক দোয়েল বাজায় শিস-
সবুজ ছাওয়া গাঁয়ের বাঁকে
পাখির কূজন ঝাঁকে ঝাঁকে
যাবি গাঁয়ে? সাথে আমায় নিস!

পথের ধারে অথৈ সবুজ বনে
গুনগুনিয়ে সুর তোলে এই মনে
গাঁয়ের ছবি হৃদয় জুড়ে আঁকা -
মায়ের মতোন স্নেহ মায়া কত
কলধ্বনি অঝর অবিরত
গাঁয়ের মেঠো পথখানি খুব বাঁকা!

অবুঝ এ মন সবুজ পাতার তলে
শাপলা বিলে ভিজাই গতর জলে
খালি পায়ে সুখের ছোঁয়ায় পাটি-
নজর জুড়ায় দুঃখ ফুরায় রোজ-ই
ছেলেবেলার গল্প আজো খুঁজি
সোনা ফলায় আমার গাঁয়ের মাটি!

গ্রামখানি আহ যেন শীতল পাটি
সোহাগ ভরা গাঁয়ের মানুষ সবার সেরা খাঁটি!

 


ধবধবে এক সাদা বিড়াল
আবরার নাঈম

ক’দিন যাবৎ-
ধবধবে এক সাদা বিড়াল
খুকির সাথে থাকে,
আদর করে মিষ্টি বেবি
নাম দিয়েছে তাকে।

খাবার সময়-
খুকি খাবে মাছটুকু আর
বিড়াল খাবে কাঁটা,
খাবার শেষে যাওয়া আগে
দেয় খুকিকে টাটা।

রাত্রি হলে-
খুকির সাথে মিলেমিশে
এক বিছানায় ঘুম,
মাঝে মাঝে খুকির গালে
দেয় সে এঁকে চুম।

আসল নাম-
খুকি এমন বিড়াল পেয়ে
ভীষণ রকম খুশি,
খুকি হলো ডাক নাম তার
আসল নামটা তুশি।

 


অবুঝ পাখির মন
মমতা মজুমদার

সবুজ গাঁয়ের অবুঝ পাখি
মিষ্টি সুরে ডাকে,
পাখির সাথে হাওয়ার সাথে
ফুলপরীরা হাঁকে।

ফুলের রানী ফুল বাগানের
সেরা সুন্দর ফুল,
প্রজাপতির রূপে পাখিরা
পরল কানে দুল।

ফুলে ফুলে দোলে ওঠে
অবুঝ পাখির মন,
টিয়া ময়নার নাচন দেখে
মুগ্ধ গাঁয়ের বন।

সবুজ পাতায় ফুল ছড়িয়ে
সাজায় রূপের হাট,
পাখির সাথে প্রজাপতির
বাঁধবে সুখের ঘাট।

মন মাতিয়ে প্রাণ মাতিয়ে
ফুল পাখিরা নাচে,
গাঁয়ের সবাই ভোর বিহানে
তাদের দেখে বাঁচে।

 


খুকির জিকির
গোলাম আজম খান

হাঁটিহাঁটি পা পা করে
খুকি বড় হয়,
আধো আধো জিকির তুলে
আল্লাহ আল্লাহ কয়!

পাঁচ ওয়াক্ত সালাত পড়ে
বাবা মায়ের সনে,
দ্বীনের পথে অটল থাকি
চিন্তা করে মনে।

অজু করে তাসবিহ হাতে
জায়নামাজে বসে,
নামাজ পড়ার ফজিলতটা
দেখে হিসাব কষে!

সালাম ফিরে হাতখানা তার
উঁচু করে ধরে,
কপোল বেয়ে পরিতাপের
অশ্রু বেয়ে পড়ে।

জাহান্নামের আযাব থেকে
নাজাত পেতে চায়,
বাবা মায়ের সাথে খুকি
নামাজে দাঁড়ায়।


আরো সংবাদ



premium cement