০৮ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪৩০, ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৫ হিজরি
`

দেশ-বিদেশে দ্বীনের দাওয়াত দিচ্ছেন ইসলামী বক্তা এম মাজহারুল ইসলাম

এম মাজহারুল ইসলাম - ফাইল ছবি

অত্যন্ত সাবলীল ভাষায় সাজিয়ে গুছিয়ে ওয়াজ মাহফিলে আলোচনা করেন ইসলামী বক্তা এম মাজহারুল ইসলাম। তরুণ বয়সেই সকলের কাছে ইতোমধ্যে পরিচিত হয়ে উঠেছেন তিনি। সমসাময়িক বিষয় ছাড়াও ইসলাম নিয়ে ভ্রান্ত ধারণা ও রাসুলুল্লাহ সা:-এর দৈনন্দিন জীবনের প্রাত্যাহিক আমলের ফাযায়েল নিয়ে কথা বলতে পছন্দ করেন তিনি। তার আলোচনা নিয়ে মাঝেমধ্যে সমালোচনাও হয় সামাজিকমাধ্যমে।

তবে এই সমালোচনাকে এম মাজহারুল ইসলাম ইতিবাচকভাবেই নেন। তিনি বলেন, আমি একজন নবীন আলোচক আমি যে অবস্থানে থেকে কথা বলি, সমালোচনা হওয়া খুব স্বাভাবিক। বাংলাদেশের এমন কোনো স্কলার নেই, যাকে নিয়ে সমালোচনা হয়নি। তাছাড়া একজন মানুষ সবার কাছে প্রিয় হতে পারে না। নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে সবাই কিন্তু পছন্দ করতো না। অথচ, তার মতো গুণসম্পন্ন মানুষ এই জগতে দ্বিতীয় জন জন্ম নেয়নি। সেখানে আমি তো খুব সাধারণ একজন মানুষ।

তরুণ এ আলোচক বলেন, আমাকে নিয়ে যারা সমালোচনা করেন, তাদেরকে আমি ইতিবাচকভাবেই নেই। তাদের সমালোচনা যৌক্তিক হলে নিজেকে শোধরানোর চেষ্টা করি। আর যদি হিংসার কারণে অযথা কেউ সমালোচনা করে, তাহলে তার বিষয়টি আল্লাহর কাছে ছেড়ে দেই।

এম মাজহারুল ইসলাম বলেন, আমি তো কাজ করছি সাধারণ মানুষের হেদায়েতের জন্য। বিশেষ করে আমি যেই ধাঁচে আলোচনা করি, এতে করে যুবক, আবাল, বৃদ্ধ, বণিতা সবাই আমার এই আলোচনা পছন্দ করে। আমি আমার আলোচনার মাধ্যমে সবার কাছে ইসলামের ম্যাসেজ পৌঁছে দিতে পারি এতেই আমার স্বার্থকতা।

তিনি বলেন, যেকোনো সমাজকে পরবর্তন করতে হলে ইসলাম থেকে প্রেসক্রিপশন নেয়া ছাড়া বিকল্প কোনো পথ নেই। আমি আমার আলোচনার মাধ্যমে মানুষের মাঝে ছড়িয়ে থাকা ইসলাম নিয়ে ভ্রান্ত ধারণাও দূর করার চেষ্টা করি।

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, আমার পক্ষ হতে (মানুষের কাছে) একটি বাক্য হলেও পৌঁছে দাও। সুতরাং আমি আশা রাখি রাসূলুল্লাহ সা:-এর কথাগুলো ছড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে আপামর মানুষ পাপকাজ ও অশ্লীলতা ছেড়ে দ্বীনের প্রতি আকৃষ্ট হবে।

এম মাজহারুল ইসলাম বলেন আমার আলোচনার মাধ্যমে একজন মানুষের জীবনও যদি পরিবর্তন হয় এতেই আমি স্বার্থক।

এম মাজহারুল ইসলাম কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার থানার পীর মহেশপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পরিবারে মা-বাবা ভাই বোনের মধ্যে তিনি চতুর্থ। এম মাজহারুল ইসলাম পড়শোনার হাতে খড়ি স্কুলে। পরবর্তী তিনি মাদরাসায় আসেন। ইলমের পিপাসায় তিনি ক্বওমি মাদরাসায়ও পড়াশোনা করেন। চলতি শিক্ষাবর্ষে তিনি ঢাকার খ্যাতনামা একটি মাদরাসায় আল হাদিস অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে তার পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছেন।


আরো সংবাদ



premium cement