২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

বিশ্বের সবচেয়ে দামী হাঁসের গল্প

এটি বিগ ডেইভ নয়, কিন্তু একই প্রজাতির একটি মাস্কভি হাঁস - ছবি : সংগৃহীত

'বিগ ডেইভ' নামের একটি হাঁসকে একদিন নিলামে ওঠানো হলো। বিগ ডেইভ ছিল পুরস্কারজয়ী পুরুষ মাস্কভি হাঁস, যেটি হাঁস প্রজননকারীদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় ছিল। বেশ ভালো জাতের হাঁস ছিল বিগ ডেইভ। হাঁসটির মালিক গ্রাহাম হিকস তখন বলেছিলেন, ‘হাঁসটির মেজাজ খুবই চমৎকার। সে সবসময় পরিচ্ছন্ন থাকে। সবসময় নিজের খেয়াল রাখে। আর আপনি যখন তাকে প্রদর্শনীতে নিয়ে আসবেন, সে আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে।’

বিগ ডেইভের এই খ্যাতির কথা স্বীকার করেন অন্যরাও। বিগ ডেইভকে ‘বড় চরিত্র’ বলে মনে করেন হিকসের মতো আরেকজন প্রজননকারী জ্যানিস হটন-ওয়ালেস, যিনি যুক্তরাজ্যের টার্কি ক্লাবের সেক্রেটারি। গ্রাহাম হিকসের সাথে সবসময়ই তার ভালো সম্পর্ক ছিল।

গ্রাহাম হিকস যখন প্রজননকারী হিসেবে অবসরে যাচ্ছিলেন, তখন বিগ ডেইভসহ তার অন্যান্য পাখি ও হাঁসও বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেন।

ওই সময় বিগ ডেইভকে কেনার জন্য বিদেশ থেকে প্রজননকারীরাও আগ্রহী হয়ে উঠছিল বলে গুজব ছড়িয়েছিল। বিগ ডেইভের জিনের জন্যই হাঁসটির চাহিদা বেড়েছিল। নিলাম শুরু হওয়ার পর অবশ্য বেশ চমকপ্রদ একটি ঘটনা ঘটে।

হাঁসটির মালিক গ্রাহাম হিকসকে না জানিয়ে তার বন্ধু হটন-ওয়ালেস একটি সিন্ডিকেট তৈরি করে, যাদের উদ্দেশ্য ছিল ডেইভকে কিনে নেয়া। টন-ওয়ালেস ডেইভের দাম হাঁকা শুরু করেন ৯০০ পাউন্ড দিয়ে। ধীরে ধীরে নিলামে ডেইভের দাম চড়তে থাকে। একপর্যায়ে হটন-ওয়ালেস বিগ ডেইভকে কিনে নেন ১৫০০ পাউন্ড বা দুই হাজার ৭০ ডলারের বিনিময়ে। বাংলাদেশী মুদ্রায় এই অর্থের পরিমাণ এক লাখ ৬০ হাজারের বেশি, যা পৃথিবীর যে কোনো হাঁসের জন্য সবচেয়ে বেশি দাম।

কেনার পর সাথে সাথেই সিন্ডিকেট বিগ ডেইভকে তার পুরনো মালিক গ্রাহাম হিকসের কাছে হস্তান্তর করে দেয়। আসলে হটন-ওয়ালেস তার পুরনো বন্ধু হিকসকে তার অবসর উপলক্ষে উপহার দিতে চাচ্ছিলেন। তাই হিকসের প্রিয় হাঁস বিগ ডেইভকেই কিনে আবার তারই কাছে ফেরত দেয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন।

সেদিন ডেইভ পৃথিবীর সবচেয়ে দামী হাঁস হিসেবে স্বীকৃতি পায়। পাশাপাশি সে যোগ দেয় হাতে গোনা কয়েকটি প্রাণীর একটি তালিকায়, যাদের পৃথিবীর সবচেয়ে দামী প্রাণী হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বিগ ডেইভ নিজেকে হাঁসদের মধ্যে সবচেয়ে দামী দাবি করতে পারে। কিন্তু এমন আরো অনেক প্রাণীই রয়েছে যেগুলোর দাম বিগ ডেইভের চেয়ে বহুগুণ বেশি।

এরপর স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন ওঠে, বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান প্রাণী তাহলে কোনগুলো? আর এগুলোর দাম নির্ধারণই বা হয় কিভাবে? এসব প্রশ্নের উত্তর আপাত দৃষ্টিতে যতটা সহজ বলে মনে হয়, আসলে ততটা সহজ নয়।

এই প্রশ্নগুলো বিশ্লেষণ শুরু করার আগে বলে নেয়া ভালো যে জীবিত প্রাণীকে তাদের মূল্যের ভিত্তিতে র‍্যাঙ্কিংয়ে ফেলার বিষয়টি অনেকের কাছে অরুচিকর মনে হতে পারে।

সূত্র : বিবিসি



আরো সংবাদ