২১ মে ২০২৪, ০৭ জৈষ্ঠ ১৪৩১, ১২ জিলকদ ১৪৪৫
`


‘একজন চিফ জাস্টিসকেও নামিয়ে দিয়েছিলাম’

মেয়র তাপসের বক্তব্য প্রধান বিচারপতির নজরে আনলেন ব্যারিস্টার আমীর

- ছবি - ইন্টারনেট

‘একজন চিফ জাস্টিসকেও নামিয়ে দিয়েছিলাম’ ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপসের এমন বক্তব্য সম্বলিত একটি জাতীয় দৈনিক প্রত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন প্রধান বিচারপতির আদালতের নজরে এনেছেন সংবিধানের অন্যতম প্রণেতা ও প্রবীণ আইনজীবী ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম।

আজ বুধবার বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির আপিল বিভাগের বেঞ্চে দৈনিক মানবজমিন প্রত্রিকায় প্রকাশিত ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপসের কিছু বক্তব্য নজরে আনেন তিনি। এসময় আপিল বিভাগে কয়েক শ’ আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন।

আপিল বিভাগে ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম প্রকাশিত ওই প্রতিবেদন পড়ে বলেন, এটা আনফরচুনেট। জবাবে প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেন, আমরা এটা দেখি। আমরা এটা ভালো করে পড়ে দেখি।

এসময় ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির আবেদন করলে প্রধান বিচারপতি বলেন, আমরা দেখি, পড়ি। পরে সিদ্ধান্ত।

আদালতে ব্যারিস্টার আমীরের সাথে ছিলেন সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী, সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সভাপতি জয়নুল আবেদীন, সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন আহমেদ, মাহবুবউদ্দিন খোকন, বদরুদ্দোজা বাদল, রুহুল কুদ্দুস কাজল, আইনজীবী কায়সার কামাল, শাহ আহমেদ বাদল, সৈয়দ মামুন মাহবুব, আবেদ রাজা, মোহাম্মদ আলী, মো: আক্তারুজ্জামান প্রমুখ।

এরপর আদালত থেকে বেরিয়ে ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম বলেন, পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘একজন চিফ জাস্টিসকেও নামিয়ে দিয়েছিলাম’- এটা কত বড় অবক্ষয়, তা আমরা প্রধান বিচারপতিসহ আপিল বিভাগের বিচারপতিদের নজরে এনছি। আমরা প্রত্যাশা করছি আপিল বিভার ফুল বেঞ্চে বিষয়টি উঠবে এবং তারা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন। এতে সারাদেশের মানুষ মনক্ষুন্ন হয়েছে। বারের সিনিয়র আইনজীবীদের নিয়ে যেসব কথা বলেছেন, সেটাও আপনারা দেখেছেন। এই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস যে মন্তব্য করেছেন তা অত্যান্ত উদ্ধত্যপূর্ণ। এটা আদালত আবমাননার শামিল।

গত ২৩ মে মঙ্গলবার দৈনিক মানবজমিন প্রত্রিকায় প্রকাশিত ‘একজন চিফ জাস্টিসকেও নামিয়ে দিয়েছিলাম’ শীর্ষক প্রতিবেদনে বলা হয়, মনটা চায় আবার ইস্তফা দিয়ে ফিরে আসি। যেখানে মুগুর দেয়ার সেটাও জানি। একজন চিফ জাস্টিসকেও নামিয়ে দিয়েছিলাম। মশিউজ্জামানকে (বারের গত নির্বাচনের সাব কমিটির প্রধান) আমরা মনে করতাম, ওরে বাবা, কী জানি ফেরেশতা আসছে। সবচেয়ে বড় চোর হলো মশিউজ্জামান। যে সকল সুশীলরা আমাদের বুদ্ধি দিতে যাবেন, সেই সকল সুশীলদের আমরা বস্তায় ভরে বুড়িগঙ্গা নদীর কালো পানিতে ছেড়ে দেবো। গত রোববার বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস।


আরো সংবাদ



premium cement