২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৯ ফাল্গুন ১৪৩০, ১১ শাবান ১৪৪৫
`

আজ বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস

-

আজ ৩ মে বিশ^ মুক্ত গণমাধ্যম দিবস বা ওয়ার্ল্ড প্রেস ফ্রিডম ডে। ইউনেস্কো ঘোষিত এ দিনটি বিশ^ব্যাপী যথাযথ মর্যাদায় পালিত হয়। ১৯৯১ সালে ইউনেস্কোর ২৬তম সাধারণ অধিবেশনের সুপারিশ মোতাবেক জাতিসঙ্ঘ ১৯৯৩ সাল থেকে এ দিবস পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। সাংবাদিকতার স্বাধীনতা ও মুক্ত গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠার মৌলিক নীতিমালা অনুসরণ, বিশ^ব্যাপী গণমাধ্যমের স্বাধীনতার মূল্যায়ন, গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ প্রতিহত করার শপথ গ্রহণ এবং পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে ক্ষতিগ্রস্ত ও জীবনদানকারীকে স্মরণ এবং তাদের স্মৃতির প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের মধ্যদিয়ে দিনটি পালন করা হয়ে থাকে। 

বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের ব্যাপক মৃত্যু ও সংক্রমণের মধ্যে এবার দিবসটি পালিত হচ্ছে। এবছর দিবসটির প্রতিপাদ্য বিষয় নির্ধারণ করা হয়েছে ‘জার্নালিজম উইদাউট ফিয়ার অ্যান্ড ফেভার’। বিশ্বব্যাপী সংবাদমাধ্যমের দুর্দিনে বিশেষত বাংলাদেশে গণমাধ্যজুড়ে যে গভীর অনিশ্চয়তা ও সঙ্কট চলছে তাতে এবারের দিবসটির তাৎপর্য অধিকতর। প্রতিপাদ্য বিষয়টিও সময়োপযোগী। 

প্রতি বছর বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) দিনটি পালন উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করে থাকে। কিন্তু এবার করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউনে থাকায় আলোচনার কর্মসূচি গ্রহণ করা যায়নি বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে সংগঠন দু’টি। বিবৃতিতে বিএফইউজে’র সভাপতি রুহুল আমিন গাজী ও মহাসচিব এম আবদুল্লাহ এবং ডিইউজে সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মো: শহিদুল ইসলাম বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবসের তাৎপর্য অনুধাবন করে বাংলাদেশে স্বাধীন, পক্ষপাতহীন ও ভীতিমুক্ত সাংবাদিকতার পরিবেশ সৃষ্টির জন্য সরকারসহ সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। করোনাকালেও সাংবাদিক নির্যাতন অব্যাহত রয়েছে উল্লেখ করে নির্যাতন নিপীড়ন বন্ধ করা এবং সাংবাদিক হত্যা-নির্যাতনের সাথে জড়িতদের দ্রুত বিচারের দাবি জানিয়েছেন। একই সাথে করোনার মহাদুর্যোগের মধ্যে সংবাদমাধ্যম প্রতিষ্ঠান থেকে কর্মী ছাঁটাই বন্ধ এবং বেতন-ভাতা পরিশোধ করার আহ্বান জানান নেতৃবৃন্দ।

 


আরো সংবাদ



premium cement