১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪২৯, ১২ জিলহজ ১৪৪৫
`

সারাদেশে মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্তের ঘরে ঘরে কান্নার রোল : বাবু জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু

- ছবি : নয়া দিগন্ত

সারাদেশে মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্তের ঘরে ঘরে কান্নার রোল পড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির খুলনা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু।

তিনি বলেন, সারাদেশে মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্তদের ঘরে ঘরে কান্নার রোল। যারা এ দেশকে এগিয়ে নিতে পরিশ্রম করে, তাদের ঘরে ভাত নেই। পার্বত্য চট্রগ্রামে ক্ষুধার জন্য সন্তানকে বিক্রি করতে চেয়েছে। আজকের বাংলাদেশ সন্তান বিক্রির বাংলাদেশ, কৃষকের আত্মহত্যার বাংলাদেশ, ব্যাংক চুরির বাংলাদেশ, ভোট চুরির বাংলাদেশ। তারা আজ বাংলাদেশকে লুটের দেশে পরিণত করেছে। একজন মাননীয়া বলেছেন, তার ভয়ে মোখা ঘূর্ণিঝড় পালিয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে বিএনপি ঘোষিত ১০ দফা দাবি বাস্তবায়নে চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আয়োজিত সমাবেশে তিনি এ সব কথা বলেন।

কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্দেশনা অনুযায়ী দ্রব্যমূলের অস্বাভাবিক উর্ধ্বগতি, বিদ্যুতের অসহনীয় লোডশেডিং, অবৈধ সরকারের সর্বগ্রাসী দুর্নীতি, গণগ্রেফতার, মিথ্যা মামলা, জামিন বাতিল ও দমন-পীড়নের প্রতিবাদে এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, সরকারের পদত্যাগ ও নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ ১০ দফা দাবিতে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী। প্রধান বক্তা ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির খুলনা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু।

বাবু জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু বলেন, আজকের অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির মেয়েকে রাজপথে সন্ত্রাসীরা আহত করেছে। মাথা ফাটিয়েছে। তার কন্যা এখন হাসপাতালের বেডে। কিন্তু তিনি জনগণের দাবি নিয়ে এখনো আপনাদের মধ্যে। এটাই বিএনপি, এটাই জনগণের জন্য মানুষ। আপনারা সন্তানকে জেলে রেখেছেন। কিন্তু আন্দোলন থেকে তার বাবাকে বিরত রাখতে পারেননি। বাংলাদেশের আকাশে মেঘ জমেছে। রাজনৈতিক ঝড় আসছে। এই ঝড়ে আওয়ামী লীগকে পালাতে হবে। আমরা নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার চাই। তারেক রহমানকে দেশে চাই।

প্রধান অতিথির ব্ক্তব্যে কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী বলেছেন, ‘শেখ হাসিনার পতনের ঘণ্টা বাজছে। শেখ হাসিনার ১৮০ দিনের মধ্যে অথবা ছয় মাসের মধ্যে পতন হবে। আগামী নির্বাচনেই তার পতন হবে। আজ সারা পৃথিবীর মানুষ এই সরকারের দুর্নীতি, মানবাধিকার লঙ্ঘন ও লুটপাট সনাক্ত করেছে। আজ তাদের পায়ের নিচে মাটি নেই। নির্যাতন করে, অত্যাচার করে পৃথিবীর কোনো ফ্যাসিস্ট টিকে থাকেনি। অতএব অত্যাচারের পতন হবেই।’

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশের শ্রমিক ও কৃষকের নাভিশ্বাস শুরু হয়েছে। দ্রব্যমূল্যের দাম কমানোর ক্ষমতা সরকারের নেই। শেখ হাসিনা যদি মনে করে, তারা বোমা মারবে, আমরা রজনীগন্ধা দিয়ে আপ্যায়ন করব না। এখন এই দেশকে আমাদেরই রক্ষা করতে হবে। আমাদের নেত্রী তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। তিনি গণতন্ত্রের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। দেশের মানুষ তাকে মা হিসেবে মানে। তাকে মিথ্যা মামলায় আটকে রাখা হয়েছে।’

সমাবেশে জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মো: শরীফুজ্জামান শরীফের সঞ্চালনা ও জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য খন্দকার আব্দুল জব্বার সোনার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জীবনগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আনোয়ার হোসেন খোকন, আলমডাঙ্গা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক, জেলা বিএনপির সদস্য হাবিবুর রহমান বুলেট, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি হেদায়েত হোসেন আসলাম, মহিলা দলের সভাপতি রওফুন নাহার রিনা, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিকুল ইসলাম পিটু, জেলা যুব দলের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজিব খান, জেলা জাসাসের সাধারণ সম্পাদক সেলিমুল হাবিব সেলিম, জেলা ছাত্রদলের সসভাপতি মোমিন মালিতা, সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান খান।

সমাবেশে বিএনপি ও দেশ নিয়ে স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন আজিজুর রহমান।


আরো সংবাদ



premium cement