১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪২৯, ১২ জিলহজ ১৪৪৫
`

১৩ বছরে ইতি টানলেন দিলরুবা সাথী

-

শুধু উপস্থাপনা দিয়েই কতটা দর্শকের মন জয় করে নেয়া যায়, যেন তারই প্রমাণ রেখেছেন দিলরুবা সাথী। স্যাটেলাইট চ্যানেল ‘চ্যানেল আই’য়ের প্রিয় মুখ দিলরুবা সাথী। ‘তারকা কথন’, ‘গান দিয়ে শুরু’সহ বিশেষ বিশেষ দিবসগুলোতে দিলরুবা সাথীর নান্দনিক উপস্থাপনা যেন সেই অনুষ্ঠানের প্রতি দর্শকের আগ্রহ বাড়িয়ে দিত। শুধু তাই নয় অনুষ্ঠানেরও মানও বেড়ে যেত অনেকখানি। চ্যানেল আইয়ের সাথে দীর্ঘ ১৩ বছরের পথচলার ইতি টেনেছেন দিলরুবা সাথী। আর কখনো চ্যানেল আইতে দেখা যাবে না দর্শকের প্রিয় এই মুখকে। দিলরুবা সাথী বলেন, ‘আমার জীবনের স্বর্ণালি দীর্ঘ ১৩টি বছর পার করেছি চ্যানেল আই পরিবারের সাথে। যদিও এটি আমার চতুর্থ চাকরি ছিল। কিন্তু এই চাকরিতে এসেও যা দিয়েছি তার চেয়েও অনেক ক্ষেত্রে কম পাইনি। ভালোবাসা আর সম্মানে আগলে থেকেছি, বিশ্বাস করতে শিখেছি চ্যানেল আই আমার পরিবার। ফরিদুর রেজা সাগর স্যার, শাইখ সিরাজ স্যার, আমীরুল ভাইসহ আমার অন্যান্য সহকর্মীদের শাসন, স্নেহ এবং সহযোগিতায় এতগুলো বছর কীভাবে যে কেটে গেল, বুঝতেই পারিনি। তাদের সাথে পথচলার ১৩ বছরের ইতি টানলাম কিন্তু সম্পর্কগুলো আগের মতোই থাকবে আমার চ্যানেল আইয়ের সাথে। ভরা থাক স্মৃতি-সুধায় হৃদয়ের পাত্রখানি।’ ছোটবেলায় শিশুশিল্পী হিসেবেও অনেক নাটকে অভিনয় করেছেন সাথী। উপস্থাপনাও অভিনয়ের বাইরে তিনি মডেলিংয়েও নিজেকে মেলে ধরার চেষ্টা করছেন। ক্যানকা ডিভিডি, নোভা টেলিভিশন, স্মার্ট মেহেদি ইত্যাদি বিজ্ঞাপন চিত্রের মডেল হয়েছেন তিনি। দিলরুবা সাথী ‘হৈমন্তী’ নাটকে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেই দর্শকের কাছে বেশ সমাদৃত হয়েছিলেন। তার অভিনীত অন্যান্য উল্লেøখযোগ্য নাটকের মধ্যে রয়েছে ‘এইমাত্র পাওয়া খবর’, ‘কারে তুমি বাসো ভালো’, ‘ফাইন জামাই’, ‘অতৃপ্ত কামনা’ ইত্যাদি। ছোটবেলা থেকেই সাথীকে তার বাবা-মা সাপোর্ট দিয়ে আসছেন সাংস্কৃতিক অঙ্গনে কাজের ব্যাপারে। যখন তার বয়স সাড়ে তিন বছর তখনই তাকে তার শিল্পকলা একাডেমিতে ভর্তি করে দেন নাচ শেখার জন্য।


আরো সংবাদ



premium cement