১৬ জুন ২০২৪
`

রাজশাহীতে বিএনপির ১৬ নেতা আজীবন বহিষ্কার

-


দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে অংশ নেয়ায় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের ১৬ জন নেতাকে দল থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।
শুধু তা-ই নয়, আগের হুঁশিয়ারি অনুযায়ী তাদের বেঈমান, বিশ্বাসঘাতক ও মীরজাফর হিসেবে আখ্যা দেয়া হয়েছে।
গত বুধবার বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত বহিষ্কারাদেশের ওই চিঠি এরই মধ্যে সংশ্লিষ্টদের কাছে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।
চিঠিতে বহিষ্কারাদেশ পাওয়া ১৬ নেতা হলেন- নগরীর রাজপাড়া থানা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী বদিউজ্জামান বদি, ১১ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক সভাপতি ও কাউন্সিলর প্রার্থী আবু বকর কিনু, শাহ মখদুম থানা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি ও ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মো: টুটুল, শাহ মখদুম থানার সাবেক সহসম্পাদক আবদুস সোবহান লিটন, নগর যুবদলের সাবেক সহসভাপতি ও ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী বেলাল হোসেন, একই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী ও নগর যুবদলের সাবেক শ্রম বিষয়ক সম্পাদক রনি হোসেন রুহুল।
এ ছাড়া নগর যুবদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুজ্জামান টিটু, ২২ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও কাউন্সিলর প্রার্থী মির্জা রিপন, ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী ও বোয়ালিয়া থানা (পূর্ব) যুবদলের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক আলিফ আল মাহমুদ লুকেন, নগর বিএনপির সাবেক সহসভাপতি ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী আনোয়ারুল আমিন আজব, মতিহার থানা বিএনপির সাবেক সহসভাপতি ও ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী আশরাফুল হাসান বাচ্চু, নগর মহিলা দলের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ৭, ৮ ও ১০ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী মুসলিমা বেগম বেলী, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক ও ৯, ১১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আলতাফুন নেসা পুতুল, যুগ্ম সম্পাদক ও ১৩, ১৪ ও ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী সামসুন নাহার, সহসভাপতি ২২, ২৩ ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী শাহানাজ বেগম শিখা এবং যুগ্ম সম্পাদক ও ২৫, ২৮ ও ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আয়েশা খাতুন মুক্তি।

বিএনপি থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কৃত ১৬ জনের মধ্যে আবদুস সোবহান লিটন, বেলাল হোসেন, আনোয়ারুল আমিন আজব ও আশরাফুল হাসান বাচ্চু বর্তমান ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং মুসলিমা বেগম বেলী ও সামসুন নাহার সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর।
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, আগামী ২১ জুন অনুষ্ঠিতব্য রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে আপনি প্রার্থী হয়েছেন। দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার কারণে ৫ জুন আপনাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আপনি জবাব দেননি, যা গুরুতর অসদাচরণ।
এতে আরো লেখা হয়, দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে ও এই নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করে আপনি গত ১৫ বছর ধরে চলমান আন্দোলনে যারা নিপীড়নের শিকার হয়েছেন, তাদের আকাক্সক্ষার প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন। তাই আপনাকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সব পর্যায়ের পদ থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হলো। গণতন্ত্র উদ্ধারের ইতিহাসে আপনার নাম- একজন বেঈমান, বিশ্বাসঘাতক ও মীরজাফর হিসেবে উচ্চারিত হবে।
এর আগে গত রোববার রাসিক নির্বাচনে অংশ নেয়া বিএনপির এই ১৬ জনের নামের তালিকা করে তা দলীয় হাইকমান্ডে পাঠানো হয়। নগর বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট এরশাদ আলী ঈসা এ তথ্য নিশ্চিত করেন। গত সোমবার সংশ্লিষ্টদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়। এরপরও কোনো জবাব না পাওয়ায় গত বুধবার রাতে তাদের আজীবনের জন্য দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

 


আরো সংবাদ



premium cement