২১ মে ২০২৪, ০৭ জৈষ্ঠ ১৪৩১, ১২ জিলকদ ১৪৪৫
`


শাকিব খানের পর ঘরটি শূন্য!

শাকিব খান - ছবি : সংগৃহীত

ঢালিউড ইন্ডাস্ট্রি এক সময় ছিল তারকায় ভরপুর। একসাথে একাধিক সুপারস্টারের সিনেমা মুক্তি পেত। নব্বইয়ের দশক পর্যন্ত দেখলে চিত্রটা এমনই। ইন্ডাস্ট্রিকে এগিয়ে নিয়েছে একসাথে কয়েকজন নায়ক। কিন্তু সেই চিত্র পাল্টে যেতে থাকে একুশ শতকের শুরু থেকে। যাদের নাম-খ্যাতি দিয়েছে এই বাংলা সিনেমা, তাদের অনেকেই ক্যামেরার সামনে থাকার চেয়ে নিজেদের অন্যান্য কাজে ব্যস্ত রাখতে শুরু করেন।

সিনেমায় অশ্লীলতা ছড়াতে থাকে সেই সময়ই। তবে তখন যেই মানুষটি শুধু সিনেমা ঘিরেই ছিলেন তিনি সাবেক চিত্রনায়ক মান্না। তবে তার সাথে আরো একটি নাম জুড়ে দিতে হয় আজ যার ক্যারিয়ারের দুই যুগ পার হলো। বলছিলাম শাকিব খানের কথা।

মান্না মারা যাওয়ার পর তার উত্তরসূরীর জায়গাটা শাকিব খান সফলতার সাথেই গুছিয়ে নিয়েছেন। অনেকগুলো বছর তার ওপর ভরসা করেই চলেছে ঢালিউড ইন্ডাস্ট্রি। সিনেমার ডিজিটাল ফর্ম আসার পর অনেকেই চিত্রনায়ক পরিচয়ে ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছেন এবং আসছেন। তবে এখন পর্যন্ত শাকিব খানের পর ঘরটি শূন্য।

আজও সর্ব্বোচ্চ হল পাওয়া সিনেমার নায়ক শাকিব খান। আর প্রযোজকদের কাছে এখনো তিনি ভরসার নাম। ক্যারিয়ারের দুই যুগপূর্তির দিনটিও তিনি ‌নতুন সিনেমা ‘প্রিয়তমা’র শুটিংয়ে কক্সবাজারে ব্যস্ত আছেন। শুটিং ইউনিটের সাথে কেক কেটে দিনটি শুরু করেন শাকিব।

আসন্ন ঈদুল আজহার সিনেমা প্রিয়তমার শুটিংয়ে কক্সবাজারে ব্যস্ত সময় পার করছেন এই নায়ক। ‘প্রিয়তমা’ নির্মাণ করছেন হিমেল আশরাফ। যেখানে শাকিবের বিপরীতে রয়েছেন ইধিকা পাল।

ক্যারিয়ারের দুই যুগ উপলক্ষে ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করেন শাকিব।

সেখানে তিনি বলেন, ‘আজ আমার চলচ্চিত্রের ক্যারিয়ারের বিশেষ দিন। আমার তো মনে হয় সেদিন চলচ্চিত্রে এলাম। আফতাব খান টুলু ভাইয়ের ‘সবাই তো সুখী হতে চায়’ ছবির মাধ্যমে প্রথম সেদিনও তো ক্যামেরার সামনে দাঁড়ালাম। সময় আসলেই কারো জন্য অপেক্ষা করে না। তবে আমার মনে হয়, আমি সময়টাকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছি। আমার দর্শকরা যেভাবে চেয়েছেন তাদের হিরোকে দেখতে, সেভাবে উপস্থিত হওয়ার চেষ্টা করে গেছি। এখনো করছি।’

শাকিব আরো বলেন, ‘আসলে সাফল্যের কোনো মূলমন্ত্র নেই। তবে একজন হিরোর সাফল্যের মূলমন্ত্র কিন্তু দর্শকদের ভালোবাসা। নায়ক যদি দর্শকদের চাওয়া-পাওয়ার মূল্য দেয়, তাহলে দর্শকদের কাছে সে গ্রহণযোগ্যতা পায়। সাফল্যও আসে।’ দর্শকরা তাকে সেই ভালোবাসা দিতেও কার্পণ্য করেননি। সেই জায়গা থেকে নিজেকে বাংলাদেশের সিনেমার আচ্ছ্বাদন মনে করেন কি-না প্রশ্নে শাকিব বলেন, ‘আমি যখন যে কাজটি করি, তা শতভাগ মনোযোগ দিয়েই করি। সেই কাজের সাথে আমার প্রেম থাকে। এখন দর্শক আমাকে বাংলাদেশের সিনেমার শামিয়ানা মনে করলে তাদের রায় মাথা পেতে নেবো।’

উল্লেখ্য, এখন পর্যন্ত শাকিব খানের ঝুলিতে রয়েছে ২৪৭টি সিনেমা। ১৯৯৯ সালে ‘অনন্ত ভালোবাসা’ দিয়ে তার চলচ্চিত্রের পথচলা শুরু।
সূত্র : ইউএনবি


আরো সংবাদ



premium cement