১৫ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১, ৮ মহররম ১৪৪৬
`

বোরকা-হুইল চেয়ারেও রক্ষা হলো না মাহির

বোরকা-হুইল চেয়ারেও রক্ষা হলো না মাহির - ছবি : সংগৃহীত

চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিকে পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার অভিযোগে দায়ের হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে তকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে মাহিকে গ্রেফতার অভিযানে অংশ নেয়া ও বিমানবন্দরে কর্তব্যরত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা বলছেন, মাহি বোরকা পরে বিমান থেকে নেমেছিলেন। বিমানবন্দরে নেমে গ্রেফতার হতে পারেন সেই আশঙ্কা থেকে তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারি এড়াতে ছদ্মবেশ নিয়েছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিমানবন্দরে মাহিকে হুইল চেয়ারেও দেখা যায়।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওমরাহ পালন শেষে দেশে ফিরলে রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মাহিকে গ্রেফতার করা হয়।

পরে শনিবার দুপুরে গাজীপুর আদালতে নিয়ে মাহিয়া মাহির সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। আদালতের বিচারক রিমান্ড মঞ্জুর না করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, জমি দখল ও পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণের অভিযোগে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি ও তার স্বামী রকিব সরকারের বিরুদ্ধে গাজীপুরের বাসন থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়। এর মধ্যে জিএমপি’র বাসন থানার এসআই রোকন মিয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। অপর মামলাটি করেন বাসন থানার দিঘীরচালা এলাকার বাসিন্দা ভুক্তভোগী ইসমাইল হোসেন।

এ মামলায় এ দম্পতিকে হুকুমের আসামি করে তাদের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক জমি দখলের অভিযোগ করা হয়। মামলায় আরো কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। উভয় মামলা শুক্রবার দিবাগত রাতে করা হয়।

এ সময় জিএমপি’র কমিশনার মোল্ল্যা নজরুল ইসলাম বলেন, নিজের ফেসবুক পেজ থেকে লাইভে এসে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের বিরুদ্ধে ‘ঘুষ’ নেয়ার অভিযোগ তোলেন মাহি ও তার স্বামী রাকিব সরকার। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মিথ্যা বলে মানুষের সহানুভূতি নেয়ার চেষ্টা করেছেন মাহি ও তার স্বামী। পুলিশের বিরুদ্ধে ঢালাও অভিযোগ করেছেন তিনি। তারা পুলিশকে বিতর্কিত করার মিশনে নেমেছেন। অথচ মাহি বা তার স্বামী জমিজমা সংক্রান্ত কোনো বিষয় নিয়ে আমার কাছে আসেননি। আজ যাদের বিরুদ্ধে তিনি অভিযোগ করেছেন, তাদেরও আমি চিনি না। পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করে অপমান অপদস্ত ও হেয় প্রতিপন্ন করার উদ্দেশে মিথ্যা, বানোয়াট, কুরুচিপূর্ণ ও মানহানিকর তথ্য প্রচার করে আইশৃঙ্খলা অবনতির ঘটানোর অপরাধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে (আইসিটি) তাদের বিরুদ্ধে বাসন থানায় রাত ৮টা ৫৫ মিনিটে একটি মামলা করে পুলিশ।

এদিকে, জোরপূর্বক জমি দখলের অভিযোগে মাহিয়া মাহি ও তার স্বামী রাকিব সরকরকে হুকুমের আসামি করে আরো একটি মামলা একই রাতে করেন বাসন থানার দিঘীরচালা এলাকার বাসিন্দা ভুক্তভোগী ইসমাইল হোসেন। এ মামলায় ২৭ থেকে ২৮ জনকে আসামি করা হয়।

স্বামীর সাথে ওমরাহ পালন করতে যাওয়া ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়িকা মাহিয়া মাহি সৌদি আরবের মক্কা শহর থেকে শুক্রবার ভোরে তার ফেসবুক পেজ থেকে লাইভে এসে অভিযোগ করে বলেন, শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে স্থানীয় ইসমাইল হোসেন লাদেন ও মামুন সরকারের নেতৃত্বে তাদের মালিকানাধীন সনিরাজ কার প্যালেস শোরুমে হামলা করা হয়। হামলাকারীরা শো-রুমের গেট ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে দরজা-জানালার কাচ, চেয়ার, টেবিলসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাঙচুর এবং শো রুমের সাইনবোর্ড খুলে নেয়। এ সময় তারা অফিস কক্ষ তছনছ করে ও টাকা পয়সা লুট করে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে রকিব সরকারের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে গেলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। ওই পেজ থেকে তার স্বামী রাকিব সরকার পুলিশের বিরুদ্ধে প্রায় দেড় কোটি ঘুষের বিনিময়ে প্রতিপক্ষকে জমি দখল করে দেয়ার অভিযোগ করেন।


আরো সংবাদ



premium cement