২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

স্মিথ দেখালেন কিভাবে ফিরতে হয়

সেঞ্চুরির পর স্টিভ স্মিথ - ছবি : সংগৃহীত

এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষে অস্ট্রেলিয়া দলে ফিরলেন সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। এবারের বিশ্বকাপ দিয়েই অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছেন এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। অবশ্য আন্তর্জাতিক ম্যাচ না হলেও হলুদ জার্সিতে ফেরা হয়ে গেছে তার ইতোমধ্যেই। ৫টি ম্যাচ খেলেছেন ইতোমধ্যেই দলের হয়ে, যদিও সবগুলোই ওয়ার্মআপ ম্যাচ।

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষে আবার বিশ্বকাপ দলে ফিরতে পারবেন কিনা তাই নিয়ে অনিশ্চয়তা ছিলো। নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়েছে গত মার্চে। সেই মাসেই অস্ট্রেলিয়া ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলেছে পাকিস্তানের বিপক্ষে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের সেই সিরিজে দলে নেয়া হয়নি নিষেধাজ্ঞা থেকে ফেরা দুই ক্রিকেটার স্টিভ স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারকে।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার(সিএ) পক্ষ থেকে বলা হয়েছে আইপিএলে তাদের পারফরম্যান্সের ওপর কঠোর নজর রেখে পরবর্তীতে বিবেচনা করা হবে জাতীয় দলের জন্য। যেন কঠিন পরীক্ষায় ফেলা হলো দুই তারকা ব্যাটসম্যানকে, যারা এক সময় ছিলেন দলের ব্যাটিংস্তম্ভ। ডেভিড ওয়ার্নার সেই আইপিএল পরীক্ষায় শুধু পাসই করলেন না এ প্লাস পেয়ে নিজের যোগ্যতার জানান দিলেন। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান এলো তার ব্যাট থেকেই কিন্তু স্টিভ স্মিথ আটকে গেলেন। দু’একটি ম্যাচ ছাড়া বলার মতো পারফরম্যান্স ছিলো না তার।

তাই ওয়ার্নার বিশ্বকাপ দলে থাকবেন সেটি বোঝা গেলেও স্মিথের ব্যাপারটি নিয়ে ছিলো অনিশ্চয়তা; কিন্তু ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার দল ঘোষণার পর দেখা গেলে স্মিথ-ওয়ার্নার দুজনেই দলে আছেন।

ক্রিকেট বোর্ড যে ভুল সিদ্ধান্ত নেয়নি তা প্রমাণ দিতে খুব বেশি সময় নিলেন না স্মিথ। এ মাসের শুরুতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অনানুষ্ঠানিক ৩ ওয়ানডের সিরিজে জ্বলে উঠল তার ব্যাট। জানিয়ে দিলেন, এক বছর খেলার বাইরে থাকলেও ব্যাটের ধার এতটুকু কমেনি।

প্রথম ম্যাচে ২২ রান করার পর দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচে করলেন যথাক্রমে ৮৯ ও ৯১ রান। দুটো ইনিংসেই অপরাজিত ছিলেন। সিরিজ জিতল অস্ট্রেলিয়া। এরপর বিশ্বকাপ খেলতে ইংল্যান্ড গিয়ে সেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একটি ওয়ার্মআপ ম্যাচ খেলে অস্ট্রেলিয়া। সেখানেও কথা বললো স্মিথের ব্যাট। ৭৬ রানের একটি ইনিংস খেলে জিতিয়েছেন দলকে।

আর শনিবার যেন এতদিনের অপূর্ণতাই রূপ পেল পূর্ণতায়। বিশ্বকাপের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে নেমে পেয়েছেন সেঞ্চুরি। ১০২ বলে ১১৬ রানের অসাধারণ একটি ইনিংস খেলেছেন এদিন স্মিথ। ফেরার পর অস্ট্রেলিয়ার হয়ে প্রথম সেঞ্চুরি। ৮ চার আর ৩ ছক্কার ইনিংসে ভর করে অস্ট্রেলিয়া সংগ্রহ পায় ২৯৭ রানের। ম্যাচটি তারা জিতেছে ১২ রানে।

এরচেয়ে ভালো বিশ্বকাপ প্রস্তুত সম্ভব! ব্যাট হাতে বিশ্বকাপের আগে নিজেকে যেভাবে ঝালিয়ে নিলেন স্মিথ তাতে মূল আসরে তার ব্যাট থেকে এর চেয়েও ভালো ভালো ইনিংস দেখার অপেক্ষা বাড়তেই পারে সমর্থকদের। সেই সাথে নিজের প্রত্যাবর্তনাটাও হলো রাজকীয়। এবার মূল আসরে দেখানোর পালা। আর স্মিথ যেমন ফর্মে রয়েছেন তাতে তার প্রতিপক্ষের অধিনায়কদের কপালে দুঃশ্চিন্তার ভাজটা আরো বাড়বে সেকথা বলাই যায়।


আরো সংবাদ