০৩ আগস্ট ২০২০

ভারতের জঙ্গি হেলিকপ্টারকে গুলি করে ভূপাতিত : দুই অফিসারের কোর্ট মার্শাল

এমআই-১৭
এমআই-১৭ - ছবি : সংগৃহীত
24tkt

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি নিজেরাই গুলি করে ভারতীয় বিমান বাহিনীর একটি এমআই-১৭ ভি৫ হেরিকপ্টার ভূপাতিত করার জন্য ভারতীয় বিমান বাহিনীর দুই অফিসারকে কোর্ট মার্শালে নেয়া হচ্ছে। ওই ঘটনায় বিমান বাহিনীর ছয় ব্যক্তি নিহত হয়। ভারতীয় বিমান বাহিনীর প্রধান রাকেশ কুমুর সিং ভাদুরিয়া ভারতীয় বিমান বাহিনীর বিমানের নিজেদের গুলিতে ভূপাতিত হওয়ার ঘটনাকে ‘বড় ধরনের ভুল’ হিসেবে বর্ণনা করার পর এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হলো।
এয়ার চিফ ভাদুরিা আরো বলেন, শিথিলতার জন্য ওই দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে তিনি বিস্তারিত কিছু বলেননি।

ওই ঘটনার সাথে পরিচিত লোকজন জানাচ্ছেন, ওই দুই অফিসারকে কোর্ট মার্শাল করা ছাড়াও ভারতীয় বিমান বাহিনীর আরো চার ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
গত ২৭ ফেব্রুয়ারি জম্মু ও কাশ্মিরের নওশেরার আকাশে ভারত ও পাকিস্তানি জঙ্গি বিমানগুলো যখন যুদ্ধে নিয়োজিত ছিল, তখনই রুশ নির্মিত একটি এমআই-২৭ হেলিকপ্টারকে ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্রে ভূপাতিত করা হয়। ভারতীয় হেলিকপ্টারটি শ্রীনগর বিমানক্ষেত্র থেকে উড্ডয়ন করে আকাশে থাকার সময় জম্মু অঞ্চলের রাজোরি সেক্টরে প্রবেশ করার পর পাকিস্তান বিমান বাহিনীর বিমানগুলো উত্তর কাশ্মিরের বারামুল্লার উরি সেক্টরে প্রবেশের চেষ্টা করছিল।

এর আগে শ্রীনগর এয়ার বেইজের এয়ার অফিসার কমান্ডিং (এওসি)-কে অপসারণ করা হয়। বেশ কয়েকটি পর্যায়ে শিথিলতা ছিল বলে তদন্তে দেখা গেছে।
উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, ভারত ও পাকিস্তান বিমান বাহিনীর জঙ্গিবিমানগুলোর মধ্যে আকাশযুদ্ধ চলার মধ্যেই হেলিকপ্টারটিকে ফিরে আসার নির্দেশ দিয়েছিল এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল। বিমান ক্ষেত্রটি আক্রান্ত হওয়ার সময় এটিসি হেলিকপ্টারটিকে অন্যত্র চলে যেতে বা পূর্ব নির্ধারিত অবস্থানে থাকতে বলতে পারত।
এর আগে ২০১৮ সালেও এ ধরনের একটি ঘটনা ঘটতে যাচ্ছিল। ওই সময় ভারতীয় বিমান বাহিনীর একটি পরিবহন বিমান ও সু-৩০এমকেআইয়ের মধ্যে সঙ্ঘাত হতে যাচ্ছিল। তখন অবতরণ করতে আসা সব বিমানকে এফওএফ সিস্টেম সুইচ অন করতে নির্দেশ দিয়েছিল ভারতীয় বিমান বাহিনীর সদর দফতর। কিন্তু কোনো ব্যাখ্যা ছাড়াই ঘাঁটি থেকে ওই নির্দেশ প্রত্যাহার করা হয়েছিল।
শত্রু বা বন্ধু শনাক্তকরণ বা আইএফএফ নির্দেশ বন্ধ করার নির্দেশ দানকারী অফিসারদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় আইএফএফ ব্যবস্থা চালূ করা হয়। এর ফলে কোন বিমানটি নিজেদের পক্ষের তা শনাক্ত করা যায়।

ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে ওই দিনের আকাশযুদ্ধে ভারতীয় বিমান বাহিনীর অন্তত একটি বিমান ভূপাতিত হয়েছিল। ওই বিমানের পাইলট পাকিস্তানে আটক হয়েছিল। তবে পাকিস্তান পরে তাকে মুক্তি দেয়। ভারতও পাকিস্তানের একটি বিমানকে ভূপাতিত করার দাবি করেছিল। কিন্তু পাকিস্তান ওই দাবি প্রত্যাখ্যান করে।
হিন্দুস্তান টাইমস


আরো সংবাদ

ইসরাইল-সিরিয়া সীমান্তে ফের উত্তেজনা, নিহত ৪ আফগান জেলে আইএস হামলা ‘অন্যায় সমর্থন না করায় আমাকে দুইবার মৃত্যুদণ্ড দিয়েছিল জয়নাল হাজারী’ তল্লাশি চৌকিতে সেনা কর্মকর্তার মৃত্যু দেশবাসীকে ক্ষুব্ধ করেছে: মির্জা ফখরুল এবার ভারতে অক্সফোর্ডের করোনা টিকার ট্রায়াল করোনা : বিধিনিষেধের মেয়াদ বৃদ্ধি কতটা সুফল দেবে সহকর্মীরাসহ স্ত্রীকে ধর্ষণ করে রেললাইনে ফেলে দিলেন স্বামী বিচারবহির্ভূত হত্যা তীব্র আকার ধারণ করছে : রিজভী পীরগাছায় বৃক্ষ রোপন কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন ওসি ফেরদৌস ওয়াহিদ বন্যায় আক্রান্তদের জন্য এক লাখ ইউরো দিচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বাংলাদেশী যুবককে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ নদীতে ফেলে দিলো বিএসএফ

সকল

সাবেক সেনা কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যা : পুলিশের ২১ সদস্য প্রত্যাহার (১৩৬৯৪)আজারবাইজানে ঢুকেছে তুর্কি জঙ্গিবিমান; যৌথ মহড়া শুরু (৮৮৬৫)ভারতের যেকোনো অপকর্মের কঠিন জবাব দেয়ার হুমকি দিলো পাকিস্তান (৭৭০৪)হামলায় মার্কিন রণতরীর ডামি ধ্বংস না হওয়ার কারণ জানালো ইরান (৭৫৭১)অবশেষে ১৪ লাখ টাকায় বিক্রি হলো সেই ‘ভাগ্যরাজ’ (৬৪৪৭)আমিরাতের পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিয়ে কেন সন্দিহান ইরান-কাতার? (৬৩৯৬)লিবিয়া ইস্যুতে তুরস্ক ও আমিরাতের মধ্যে তুমুল বাগযুদ্ধ (৬৩৯৬)হিজবুল্লাহর জালে আটকা পড়েছে ইসরাইল! (৫৯২৩)ভারত-চীন সীমান্তের নতুন স্থানে চীনা বাহিনীর অবস্থান, আতঙ্কে ভারত (৫৪৭৯)পুলিশের গুলিতে সাবেক সেনা কর্মকর্তার মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি (৫১৯১)