১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১, ৭ মহররম ১৪৪৬
`

সিলেটে পানিবন্দীদের উদ্ধার ও চিকিৎসক দল পাঠানোর দাবি জামায়াতের

- ছবি : নয়া দিগন্ত

বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বলছেন, ‘পানিবন্দীদের দ্রুত উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় দান এবং দুর্গত এলাকায় বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রীসহ শুকনো খাবার, নগদ অর্থ, ওষুধ এবং চিকিৎসা সামগ্রী ও চিকিৎসক দল পাঠানোর জন্য আমি সরকারের নিকট জোর দাবি জানাচ্ছি।’

বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও টানা প্রবল বর্ষণে সিলেট অঞ্চলের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতিতে আমি গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি।’

তিনি বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে সকলের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।

উজান থেকে আসা পাহাড়ি ঢল ও অবিরাম প্রবল বর্ষণের ফলে সিলেটের সুরমা, কুশিয়ারা অববাহিকায় কয়েকদিন আগে থেকেই বন্যা দেখা দিয়েছে। বর্তমানে বন্যা পরিস্থিতি মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। ইতোমধ্যেই সাড়ে ১৩ লাখ মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। সিলেট মহানগরীতেই প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।

সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভিবাজার, হবিগঞ্জ প্রভৃতি অঞ্চলে মোট সাড়ে ১৩ লাখ লোক পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। জমির ফসল, তরিতরকারি, ফলের বাগান ও বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে। গৃহপালিত পশু-পাখি রাখার জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না। এছাড়াও নেত্রকোনা, শেরপুর, নীলফামারী, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা প্রভৃতি জেলার নিম্নাঞ্চল বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘বৃহত্তর সিলেটসহ বন্যাদুর্গত এলাকার পানিবন্দী লোকদের অতি দ্রুত উদ্ধার করে নিরাপদ উঁচু স্থানে আশ্রয় দেয়া প্রয়োজন। সেইসাথে বন্যাদুর্গত লোকদের জন্য জরুরি ভিত্তিতে খাদ্য সামগ্রীসহ শুকনো খাবার, নগদ অর্থ, চিকিৎসা সামগ্রী, ওষুধ-পথ্য এবং চিকিৎসক দল পাঠানোর জন্য আমি সরকারের নিকট জোর দাবি জানাচ্ছি। আমি বন্যাদুর্গতদের সার্বিক সহযোগিতা করার জন্য বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সংশ্লিষ্ট এলাকার সকল নেতাকর্মী, দানশীল ব্যক্তি, বিভিন্ন সাহায্যকারী সংস্থা ও দেশবাসী সকলের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি।’
প্রেস বিজ্ঞপ্তি


আরো সংবাদ



premium cement