২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৫ শাবান ১৪৪৫
`

বাইডেনের সাথে বৈঠক শেষে পূর্ণ যুদ্ধবিরতির ডাক বাদশাহ আব্দুল্লাহর

হোয়াইট হাউসে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দিচ্ছেন জর্ডানের রাজা দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ। পাশে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন - ছবি : সংগৃহীত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে আলোচনা শেষে জর্ডানের বাদশাহ দ্বিতীয় আব্দুল্লাহ গাজায় লড়াই শেষ করার জন্য পূর্ণ যুদ্ধবিরতির আহবান জানিয়েছেন। বাদশাহর আহবান বাইডেনের মতের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ হয়নি। কারণ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট শুধু ছয় সপ্তাহের বিরতি চাইছেন, যাতে ইসরাইল হামাসকে পরাজিত করার সময়টা পায়।

হোয়াইট হাউসে আব্দুল্লাহকে পাশে নিয়ে বাইডেন বলেন যে গাজার দক্ষিণে রাফা শহরে ইসরাইল যে আক্রমণের প্রস্তুতি নিচ্ছে, তাতে যেন বেসামরিক মানুষদের অবশ্যই নিরাপত্তা দেয়া হয়। অন্য দিকে, জর্ডানের রাজা যেকোনো অভিযানের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দেন।

একাশি বছর বয়স্ক বাইডেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র গাজা ভূখণ্ডের যুদ্ধে অন্তত ছয় সপ্তাহের বিরতির জন্য আলোচনা চালাচ্ছে। এই সাময়িক বিরতি আরো বিস্তৃত একটি সমঝোতার অংশ হিসেবে আলোচিত হচ্ছে, যার মধ্যে হামাসের হাতে আটক বন্দীদের মুক্তির বিষয়টিও অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

তবে জর্ডানের রাজা বলেন, ‘আমাদের এই মুহূর্তে দীর্ঘস্থায়ী যুদ্ধবিরতির প্রয়োজন। এই যুদ্ধের অবসান হতেই হবে।’ গত বছর ৭ অক্টোবর হামাস ইসরাইল আক্রমণ করলে যে লড়াই শুরু হয়, তা বন্ধ করার জন্য আব্দুল্লাহ বারবার পূর্ণ যুদ্ধবিরতির জন্য চাপ দিয়েছেন।

মানবিক বিপর্যয়

ওই আক্রমণের পর বাইডেনের সাথে প্রথম মুখোমুখী বৈঠকে আব্দুল্লাহ বলেন, রাফার উপর ইসরাইলের হামলা ‘এই বিশ্ব মেনে নিতে পারে না।’

‘এটা আরেকটি মানবিক বিপর্যয় নিয়ে আসবে। আমরা দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে এটা আর চলতে দিতে পারি না।’

যুক্তরাষ্ট্র বরাবরই পূর্ণ যুদ্ধবিরতির ডাক প্রত্যাখ্যান করে আসছে। আমেরিকা বলছে, তারা হামাসকে পরাজিত করার জন্য ইসরাইলের অভিযান সমর্থন করে এবং সীমিত বিরতির মাধ্যমে বন্দীদের মুক্ত করার প্রক্রিয়ার আহবান জানাচ্ছে।

তবে, যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ মিত্র ইসরাইলের সাথেও বাইডেন কঠোর অবস্থান নেয়া শুরু করেছেন। গত সপ্তাহে বাইডেন বলেছেন যে গাজায় ইসরাইলের প্রতিক্রিয়া ‘মাত্রা ছাড়িয়ে’ গেছে।

আঞ্চলিক সঙ্ঘাতের আশঙ্কা

সঙ্ঘাত যাতে এই অস্থিতিশীল অঞ্চলে ছড়িয়ে না পরে, তা নিয়েও দুই নেতা আলোচনা করেন।

জানুয়ারি মাসে জর্ডানের এক ঘাঁটিতে ড্রোন হামলায় তিন আমেরিকান সৈন্য নিহত হয়। এর জবাবে যুক্তরাষ্ট্র ইরাক আর সিরিয়াতে ইরান-সমর্থিত মিলিশিয়াদের উপর বিমান হামলা চালায়।

জর্ডানের রাজার সফরের প্রথম বিরতি হচ্ছে ওয়াশিংটন। এর পর তিনি গাজায় যুদ্ধ বিরতি এবং হামাসের হাতে বন্দি বন্দীদের মুক্তির জন্য আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে কানাডা, ফ্রান্স এবং জার্মানি যাবেন। .

গাজার ইতিহাসে সব চেয়ে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ শুরু হয় যখন হামাস দক্ষিণ ইসরাইলে এক অভূতপূর্ব হামলা চালায়, যাতে ১,১৬০ জন লোক নিহত হয় যাদের বেশির ভাগ বেসামরিক মানুষ। এই পরিসংখ্যান এএফপি ইসরাইলের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তৈরি করেছে।

জবাবে ইসরাইল ব্যাপক বোমাবর্ষণ আর স্থল অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে, যাতে গাজার হামাস-পরিচালিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী ২৮,৩৪০ জন নিহত হয়েছেন, যাদের বেশির ভাগ নারী ও শিশু।

প্রথম আক্রমণের দু’সপ্তাহরও কম সময় পর বাইডেন যখন ইসরাইলে যান, তখন আব্দুল্লাহর সাথে আলোচনার জন্য তার জর্ডানে যাবার কথা ছিল। কিন্তু গাজার এক হাসপাতালে বিস্ফোরণের ফলে আরব বিশ্বে ব্যাপক ক্ষোভ সৃষ্টি হলে ওই সফর বাতিল করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন জানুয়ারী মাসে আম্মানে আব্দুল্লাহর সাথে দেখা করেন। জর্ডানের রাজা এই শীর্ষ কূটনীতিকে গাজায় মানবিক সঙ্কট নিরসনের জন্য যুদ্ধবিরতির জন্য কাজ করার আহবান জানান।
সূত্র : ভয়েস অব আমেরিকা


আরো সংবাদ



premium cement
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণায়ের নাম ‘নারী ও শিশু বিষয়ক’ মন্ত্রণালয় রাখার সুপারিশ ফরিদপুরে হত্যা মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন অশ্বিন-কুলদীপের ঘূর্ণিতে সিরিজ জয় থেকে ১৫২ রান দূরে ভারত ফরিদপুরে মাদক মামলায় নারীর যাবজ্জীবন প্রাথমিকে ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে ‘ছোট্ট’ জ্যোতির মুখোমুখি বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা পুরুষ! টাঙ্গাইল শাড়ির জিআই নিবন্ধন বিষয়ে বাংলাদেশের করণীয় বিষয়ে মত বিনিময় সভা সন্দেহজনক লেনদেনের অর্থ কোথায় যায়! পাকিস্তানে অধিবেশনের আগে ‘সংরক্ষিত আসন বণ্টন’ চান প্রেসিডেন্ট আলভি ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে আগামীকাল মুখোমুখি হবে কুমিল্লা-রংপুর নোয়াখালীতে ভোটের রাতে গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণ : সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার

সকল