২১ মে ২০২৪, ০৭ জৈষ্ঠ ১৪৩১, ১২ জিলকদ ১৪৪৫
`


লিবিয়ার বন্যার্তদের জন্য ৭১ মিলিয়ন সহায়তার আবেদন জাতিসঙ্ঘের

লিবিয়ার বন্যার্তদের জন্য ৭১ মিলিয়ন সহায়তার আবেদন জাতিসঙ্ঘের - ছবি : সংগৃহীত

লিবিয়ায় চলতি সপ্তাহের শেষ দিকে ভয়াবহ আকস্মিক বন্যার পর ৭১ মিলিয়ন ডলার জরুরি সহায়তার আবেদন জানিয়েছে জাতিসঙ্ঘ।

রোববার (১০ সেপ্টেম্বর) ঘূর্ণিঝড় দানিয়েলের তাণ্ডবে দু’টি উজানের বাঁধ ফেটে যাওয়ার পর সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দারনা শহর। শহরটি একটি মরুভূমিতে পরিণত হয়েছে।

জাতিসঙ্ঘের মানবিক ত্রাণ সহায়তা সমন্বয়ক দফতর ওসিএইচএ বলেছে, শহরটির আনুমানিক ৩০ শতাংশ অদৃশ্য হয়ে যেতে পারে এবং বেশিরভাগ রাস্তা ধসে পড়েছে।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ত্রাণ এবং উদ্ধারকৃত লোকদের সরিয়ে নেয়ার জন্য একটি সমুদ্র করিডোর স্থাপনের আহ্বান জানিয়েছে।

সমুদ্রতীরবর্তী শহর সোসে এখনো পুরো বন্যার পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে।

পরিস্থিতিকে ‘বিপর্যয়কর’ বলে অভিহিত করে ওসিএইচএ বলেছে, অনুমিত আট লাখ ৮৪ হাজার লোকের মধ্যে দুই লাখ ৫০ হাজার জনকে সবচেয়ে জরুরি প্রয়োজনে সাড়া দিতে ৭১.৪ মিলিয়ন প্রয়োজন। এজন্য তারা মানবিক সহায়তা অংশীদারদের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছে।

বুধবার জাতিসঙ্ঘের মানবিক সহায়তা সমন্বয়-বিষয়ক সংস্থা প্রধান মার্টিন গ্রিফিথস ১০ মিলিয়নের তাৎক্ষণিক জরুরি তহবিল ঘোষণা করেছেন।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘পুরো আশপাশের এলাকাগুলো মানচিত্র থেকে মুছে গেছে। পুরো পরিবারগুলো পানির স্রোতে ভেসে গেছে। মানুষের কাছে জীবনরক্ষাকারী ওষুধ পৌঁছানো এবং পুনরুদ্ধারে অবশ্যই লিবিয়ার জন্য এই কঠিন সময়ে অন্য কোনো উদ্বেগকে অগ্রাহ্য করে এগিয়ে আসা উচিত।’

যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপিয় ইউনিয়ন, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাংলাদেশসহ অন্য বেশ কয়েকটি দেশ ইতোমধ্যেই সাহায্য পাঠিয়েছে বা প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। বিদেশী উদ্ধারকারী দলগুলো জীবিতদের সন্ধানে এবং লাশ উদ্ধারের জন্য মোতায়েন করা হয়েছে।
সূত্র : বাসস


আরো সংবাদ



premium cement