১৬ জুন ২০২৪
`

ভূমিকম্প-বিধ্বস্ত মরক্কো অতি শিগগিরই সহায়তা দাবি করতে পারে : জাতিসঙ্ঘ

- ছবি - ইন্টারনেট

জাতিসঙ্ঘ শুক্রবার বলেছে, মরক্কোতে বিধ্বংসী ভূমিকম্পে পুনরুদ্ধার ও পুনর্গঠনে সহায়তার জন্য ‘আজ অথবা আগামীকাল’ সাহায্য চাইতে পারে। ভয়াবহ এই ভূমিকম্পে তিন হাজার লোক প্রাণ হারিয়েছে এবং হাজার হাজার ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়েছে।

জাতিসঙ্ঘ সাহায্য প্রধান মার্টিন গ্রিফিথস জেনেভায় সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা প্রতিক্ষায় আছি ও আশা করছি, মরক্কোর কর্তৃপক্ষের সাথে আমাদের আলোচনা থেকে আজ বা আগামীকালের মধ্যে সাহায্যের অনুরোধ চলে আসবে।’

গত শুক্রবার সাত দশমিক দুই মাত্রার ভূমিকম্পের পর থেকে স্পেন, ব্রিটেন, কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে উদ্ধারকারী দলগুলোকে উদ্ধারকর্মে এগিয়ে আসার সম্মতি দিয়েছে মরক্কো। তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স এবং মধ্যপ্রাচ্যের কিছু দেশসহ অন্যান্য দেশের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে মরক্কো।
খবর এএফপি’র

গ্রিফিথস বলেন, ‘আমরা কাজ করার, সমন্বয়ের ও সহায়তা প্রদানের জন্য প্রস্তুত। তিনি বলেন, পরবর্তী পর্যায়টি হলো জীবিতদের আশ্রয়, খাদ্য,ও চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করা।’

তিনি বলেন, সাম্প্রতিক দিনে মরোক্কোতে জীবিতদের খুঁজে বের করার পরিবর্তে জীবিত ব্যক্তিদের বেঁচে থাকায় সাহায্য করাকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার মরক্কো প্রায় ৫০ হাজার ক্ষতিগ্রস্ত ভবনের বাসিন্দাদের সহায়তা ও পুনর্বাসনের জন্য একটি সাহায্য কর্মসূচি চালু করার ঘোষণা করেছে এবং ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ৩০ হাজার দিরহাম জরুরি সহায়তার আদেশ দিয়েছে।

মারাকেশ থেকে ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ রেড ক্রস এবং রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মুখপাত্র বেনোয়িত কার্পেন্টিয়ার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন পুননির্মাণে সপ্তাহ, মাস, এমনকি বছরও লাগতে পারে।


আরো সংবাদ



premium cement
এবারের হজে যোগ দিলো ২০ লাখেরও বেশি মুসলিম আ’লীগ নেতার হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় আইসক্রিম ফাক্টরি মালিক সরকারের নতজানু নীতির কারণে সীমান্তে আগ্রাসন : মির্জা ফখরুল বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে তৎপর থাকার নির্দেশ বিজিবি প্রধানের বাংলাদেশ জাতীয় মুফতী বোর্ডের ‘কুরবানী ও ঈদুল আযহা’ শীর্ষক মতবিনিময় অনুষ্ঠিত ইরানের নির্বাচনে কে হবেন নতুন প্রেসিডেন্ট ধলেশ্বরী নদী থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার যুক্তরাষ্ট্রকে যুদ্ধে টেনে আনছে ইসরাইল! চিন্তায় বাইডেন ঈদের দিন কি বৃষ্টি হবে! এক লাখ কোটি টাকার কোরবানির অর্থনীতি ‘শয়তানকে পাথর মারার’ মধ্যদিয়ে হজের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করেছেন হাজীরা

সকল