২১ অক্টোবর ২০২০

এইচএসসির রুটিন আগামী সপ্তাহে : সহসাই খুলছে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

-

আগামী সপ্তাহে উচ্চ মাধ্যমিক তথা এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি। তিনি আরো জানিয়েছেন পরীক্ষার প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে শিক্ষার্থীদের চার সপ্তাহ সময় দেয়া হবে। তবে কোনো শিক্ষার্থী বিশেষ কারণে পরীক্ষা দিতে না পারলে তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হবে। অন্য দিকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যে শিক্ষার্থীদের ঝুঁকির মধ্যে না ফেলতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানো হবে বলেও জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি। কতদিন ছুটি বাড়ানো হচ্ছে তা আগামী দু-এক দিনের মধ্যে জানিয়ে দেয়া হবে বলে জানান তিনি।
গতকাল বুধবার শিক্ষাবিষয়ক সাংবাদিকদের সাথে এক (ভার্চুয়াল) সভায় শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনি এ কথা জানিয়েছেন। ভার্চুয়াল এ সভায় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মাহাবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো: আমিনুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক প্রমুখ।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পরীক্ষা না নিয়ে আগের পরীক্ষার মাধ্যমে মূল্যায়ন করে সার্টিফিকেট প্রদান করার প্রস্তাবও করছেন অনেকে। এটিকেও আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি, এটি একটি প্রস্তাব হতে পারে। তবে পরীক্ষা ছাড়া সার্টিফিকেট দিলে তারা যখন চাকরি নিতে যাবে তখন তারা নানা ধরনের প্রশ্নের সম্মুখীন হতে পারে। তাই ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করেই আমরা পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
শিক্ষা মন্ত্রী বলেন, কবে থেকে এইচএসসি-সমমান পরীক্ষা শুরু হবে তা আগামী সপ্তাহের সোম অথবা মঙ্গলবার সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরা হবে। পরীক্ষা আয়োজনে প্রশ্ন, উত্তরপত্র তৈরিসহ সব প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে। এখন শুধু পরীক্ষা শেষ করা বাকি রয়েছে। পরীক্ষা দিতে গিয়ে যাতে কারো ক্ষতি না হয় সে বিষয়টি আমরা গুরুত্ব দেব। বিশেষ কারণে কোনো শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে না পারলে আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে তার পরীক্ষা নেবো।
তবে এবার সব বিষয়ের পরীক্ষা না নিয়ে মৌলিক বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দেয়া হবে। কোন কোন বিষয়ের পরীক্ষা নেয়া হবে সেটি আগামী সপ্তাহে ঘোষণা করা হবে। এ ক্ষেত্রে কেউ যদি বিশেষ কারণে পরীক্ষা দিতে না পারে তবে তার জন্য বিকল্প ব্যবস্থা রাখা হবে। সব কিছু আগামী সপ্তাহে ঘোষণা করা হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী।
উল্লেখ্য, এবার এপ্রিলেই এইচএসসি পরীক্ষা শুরুর কথা ছিল। তবে করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করায় স্থগিত করা হয় পরীক্ষাটি। গত ১৭ মার্চ থেকে দেশে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। করোনার সময়েও বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অভিভাবকদের নিকট থেকে যেভাবে চাপ প্রয়োগ করে টিউশন ফি আদায় করছে সে বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কোনো অভিভাবকের কী অবস্থা, সে বিষয়ে খোঁজ নিয়ে প্রতিষ্ঠান টিউশন ফি কমাবে বা নেবে। কারো ওপর চাপ সৃষ্টি করা যাবে না। টিউশন ফির কারণে যাতে কোনো শিক্ষার্থীর পড়াশোনার বিঘœ না ঘটে সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। ডা: দীপু মনি বলেন, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ওপর আমরা কোনো ফি চাপিয়ে দিতে পারি না। কারণ তাদের নিজস্ব খরচ রয়েছে। সবকিছু বিবেচনায় নিয়ে প্রতিষ্ঠান ও অভিভাবককে সমঝোতায় আসতে হবে।


আরো সংবাদ

নোয়াখালীতে পুকুরের পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু ‘পল্লী বিদ্যুৎ অফিস লাইনটি অপসরণ করে নিলে আজ এমন দুর্ঘটনা ঘটত না’ আলুর দাম ৫০-৫৫ টাকা গ্রহণযোগ্য নয় : কৃষিমন্ত্রী মোদির করোনা ভাষণে দর্শক কম, ডিজলাইক বেশি নাটোরে সড়ক দুর্ঘটনায় মায়ের পর ছেলের মৃত্যু আশুলিয়ায় বাসচাপায় রেস্টুরেন্ট কর্মচারী নিহত নৌধর্মঘট : আশুগঞ্জ বন্দরে ২ দিন ধরে আটকা অর্ধশতাধিক তেল ও পণ্যবাহী জাহাজ বিএনপির নেতৃত্বের ওপর দলের কর্মীরা আস্থা হারিয়ে ফেলেছে : কাদের করোনায় দেশে আরো ২৪ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১৫৪৫ নারীকে চাপা দিয়ে পালাতে গিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা ট্রাকের নভেম্বরেও খুলছে না শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

সকল