১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪২৯, ১২ জিলহজ ১৪৪৫
`

মালয়েশিয়ার উন্নয়নে প্রবাসীদের অবদান স্বীকার করল দেশটি

কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা মন্ত্রী মোহাম্মদ সাবু। - ছবি : সংগৃহীত

অভিবাসী শ্রমিকরাও দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখছে বলে স্বীকার করেছে দেশটি। তবে এর আগে প্রবাসীদের অবদান এর কথা মৌখিক ভাবে স্বীকার করলেও এবারই প্রথমবারের মত মালয়েশিয়ার জাতীয় সংসদে প্রবাসীদের ভূয়সী প্রশংসা করে তাদের অবদানের কথা স্বীকার করা হয়েছে। 

বর্তমানে মালয়েশিয়াতে চালের ঘাটতি সত্ত্বেও সরকার বিদেশী নাগরিকদের জন্য স্থানীয় চাল কেনায় নিষধাজ্ঞা দেয়ার কোনো পরিকল্পনা করছে না বলে দেশটির, কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

মালয়েশিয়ার কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা মন্ত্রী মোহাম্মদ সাবু বলেন 'বিদেশীদেরও তো খেতে হবে'।

তিনি আজ সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) দেশটির দেওয়ান রাকয়াতকে বলেন, যে অভিবাসী শ্রমিকরাও দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রেখেছে এবং আমদানিকৃত চালের সাম্প্রতিক মূল্যবৃদ্ধির পরে আতঙ্কিত হওয়ার কারণে স্থানীয় চালের ঘাটতি ছিল।

মেলাকা গ্রামীণ উন্নয়ন, কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তা কমিটির চেয়ারম্যান ডক্টর আকমল সালেহ এর আগে পরামর্শ দিয়েছিলেন যে সরকার শুধুমাত্র মালয়েশিয়ানদের জন্য স্থানীয় চাল ক্রয় সীমাবদ্ধ করবে।

মোহাম্মদ বলেন, আমদানিকৃত চালের দাম বাড়লে ব্যবসায়ীরা স্থানীয় চাল খুঁজতে শুরু করেন, ফলে চাহিদা বেড়ে যায় এবং ঘাটতি দেখা দেয়।

তিনি দেওয়ান রাকয়েতকে আরো বলেন, মন্ত্রণালয় নিশ্চিত যে স্থানীয় চালের বর্তমান ঘাটতি এক মাসের মধ্যে কেটে যাবে।

মোহাম্মাদ বলেন, স্থানীয় চালের ঘাটতি কাটিয়ে উঠতে স্থানীয় হোয়াইট রাইস অপারেশন বাস্তবায়নসহ হস্তক্ষেপের পদক্ষেপগুলি সমস্যার সমাধান করবে। তিনি আরো বলেন, দেশে বর্তমানে চালের মজুদ ৯ লাখ টন। এর মধ্যে রয়েছে ২৫০,০০০ টন স্টক রিজার্ভ এবং ৬৫০, ০০০ টন ট্রেড স্টক। দ্য ভাইবস, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

উল্লেখ্য মালয়েশিয়ায় বিদেশী কর্মীদের সংখ্যায় বাংলাদেশী প্রবাসীরা গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে এগিয়ে আছে। মালয়েশিয়ার নির্মাণ খাতে একচ্ছত্র আধিপত্য রয়েছে বাংলাদেশী কর্মীদের। নির্মাণ সেক্টর ছাড়াও মালয়েশিয়ার সব সেক্টরে সফলতার সাথে কাজ করছে বাংলাদেশীরা। নিয়োগকর্তাদের প্রথম পছন্দের তালিকায় এখন শুধু বাংলাদেশী কর্মী।


আরো সংবাদ



premium cement