০৩ ডিসেম্বর ২০২০

তুরস্কে শক্তিশালী ভূমিকম্পের পর সুনামির আঘাত


তুরস্ক-গ্রিসে শক্তিশালী ভূমিকম্পের পর সুনামি আঘাত হেনেছে। গ্রিসের সরকারি টেলিভিশন এ তথ্য জানিয়েছে।

ভূমিকম্পের কারণে ইজিয়ান সাগরের সামোস দ্বীপে 'ক্ষুদে-সুনামির' সৃষ্টি হয়েছে। এতে বেশ কিছু ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া ইজমিরের বিভিন্ন রাস্তা প্লাবিত হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

তুরস্কের ইজমির প্রদেশে ৬.৬ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির দুর্যোগ ও জরুরী ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ(এএফএডি)। ভূমিকম্পটি আজিয়ান সাগরের সাড়ে ১৬ কিলোমিটার (১০ মাইল) গভীরতায় সংঘটিত হয়েছে।

এটি তুরস্কের তৃতীয় বৃহত্তম শহর সমগ্র ইজমির জুড়ে এবং ইস্তাম্বুলেও অনুভূত হয়েছিল।

তুরস্কের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফারহেত্তিন কোচা জানিয়েছেন, ভূমিকম্পে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও ১২০ জন আহত হয়েছেন।

ভূমিকম্প অনুভূত হলে সাথে সাথে মানুষজন রাস্তায় নেমে আসেন। ভূমিকম্পের পর ইজমিরের বায়ারকালি জেলায় ধ্বংসস্তুপের ভেতর থেকে তিনজনকে টেনে বের করা হয়।

ভূমিকম্পে অন্তত ২০টি স্থাপনা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছ বলে জানিয়েছেন ইজমিরের মেয়র।

প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে থাকার অঙ্গীকার জানিয়েছেন।  ক্ষতিগ্রস্থদের সব ধরণের সহায়তার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। 

তুরস্ক এবং গ্রিস উভয়ই ফল্টলাইনে অবস্থিত। ভূমিকম্প এ অঞ্চলে স্বাভাবিক ঘটনার মতো। ফেব্রুয়ারিতে তুরস্কের পূর্বাঞ্চলীয় এলাজিগ প্রদেশে ভূমিকম্পে অন্তত ৩০ জন নিহত হয়। আহত হয় ১৬০ জন।

২০১৯ সালের জুলাইতে গ্রিসের অ্যাথেন্সে ভূমিকম্প আঘাত হানে। এতে শহরের অধিকাংশ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ১৯৯৯ সালে ইস্তাম্বুলের পার্শ্ববর্তী ইজমির শহরে শক্তিশালী ভূমিকম্পন আঘাত হেনেছিল। এতে ১৭ হাজার মানুষ নিহত হয়।

সূত্র : ডেইলি সাবাহ, সিএনএন


আরো সংবাদ