০৪ মার্চ ২০২১
`

দর্শক আনন্দ পেলেই দ্য বক্স টিমের কষ্ট স্বার্থক : তিশা

দর্শক আনন্দ পেলেই দ্য বক্স টিমের কষ্ট স্বার্থক : তিশা - ছবি : সংগৃহীত

টেলিভিশনের নতুন গেম শো ‘দ্য বক্স’। ৩১ ডিসেম্বর এনটিভিতে এবং এটিএন বাংলায় ১ জানুয়ারি থেকে অনুষ্ঠানটি দেখানো হবে। শাহরিয়ার শাকিলের প্রযোজনায় গ্রামীণফোন ফোরজি নিবেদিত ‘দ্য বক্স’-এর মাধ্যমে পেশাদারি উপস্থাপক হিসেবে নাম লিখাতে যাচ্ছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা। এ বিষয়ে তিশা কথা বলেছেন নয়া দিগন্তের সাথে

প্রথমবার উপস্থাপক হিসেবে পর্দায় হাজির হচ্ছেন, অনুভূতি কেমন?
-যেকোনো প্রথমের ভালোলাগা অন্যরকম। দ্য বক্স-অনুষ্ঠানটি আমাকে সেই ভালোলাগা উপহার দিয়েছে। আগে দু-একটা অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা করেছি তবে সেগুলোতে প্রফেশনালি নেয়ার মতো ছিল না। এবার যেহেতু অভিনেত্রী থেকে প্রফেশনালি উপস্থাপক হয়ে গেলাম তাই ভালো লাগাটাও অন্যরকম। অতিথিদের সাথে অনেক মজা করেছি। সবার সাথে হাসিঠাট্টা হয়েছে। আমাদের যেহেতু ভালো লাগছে, দর্শকদেরও ভালো লাগবে আশা করি।

দ্য বক্স অনুষ্ঠানটির ধরন আসলে কী রকম?
-অনুষ্ঠানের নাম দেখে কিছুটা হলেও অনুমান করার কথা। বাকিটা অনুষ্ঠান টিভির পর্দায় দেখে বুঝে নিবেন। তবে আমাদের অনুষ্ঠানের প্রতি পর্বে দর্শক সময়ের জনপ্রিয় তারকাদের দেখতে পারবেন। প্রথম অতিথি ছিলেন অভিনয়শিল্পী সিয়াম আহমেদ ও মাসুমা রহমান নাবিলা। শুটিং-পরবর্তী সময়ে তারা বলেছেন অনুষ্ঠানটি করে তারা আনন্দ পেয়েছেন। এখন দর্শক আনন্দ পেলেই দ্য বক্স টিমের কষ্ট স্বার্থক হবে।

প্রচলিত টেলিভিশন শো থেকে দ্য বক্স-এর পার্থক্য কোন জায়গায়?
-কাজটি হাতে নেয়ার আগে অনুষ্ঠানটির সৃজনশীল দিক নিয়ে চিন্তা করেছি। শুটিংয়ের সময়ও আমার মাথায় ছিল এখন অনেক শো হচ্ছে। সেই জায়গা থেকে আমরা ভিন্নতা আনার চেষ্টা করেছি। একটা শোর দর্শক টানতে হোস্টের পাশাপাশি পুরো টিমের অনেক কাজ থাকে। সে সব কাজের সাথেও আমার ইনভেস্টমেন্ট আছে।

এই ধরনের অনুষ্ঠান তৈরিতে স্পন্সর অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এই জায়গাটায় আপনারা কেমন সহযোগিতা পেয়েছেন?
-এই প্রশ্নের সবচেয়ে ভালো উত্তর দিতে পারতেন শাহরিয়ার শাকিল। কারণ তিনি অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা করেছেন। তবে আমার মনে হয় এই জায়গাটায় গ্রামীণফোন বিশেষ একটা ধন্যবাদ পাবে। কারণ তারা দর্শক এবং গ্রাহকের ভালো লাগাকে প্রাধান্য দিয়ে এ ধরনের একটি অনুষ্ঠানে বিনিয়োগ করেছে। এই ধরনের অনুষ্ঠানে বেশি বেশি বিনিয়োগ করলে স্পন্সর কোম্পানি সহজেই গ্রাহকদের কাছে পৌঁছে যেতে পারবে।

সাম্প্রতি সময়ে অভিনয়ে আপনার ব্যস্ততা কী নিয়ে?
-করোনার কারণে এখন কাজ অনেক কম। এর মধ্যেও বেশ কিছু একক নাটকে কাজ করা হয়েছে। এখন ভালোবাসার প্রীতিলতা ছবির শুটিং করছি। ২০১৯-২০ অর্থবছরের সরকারি অনুদানে নির্মিত হচ্ছে ছবিটি। ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম বিপ্লবী প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের জীবনী নিয়ে তৈরি হচ্ছে এটি। সেখানে প্রীতিলতা চরিত্রে অভিনয় করবেন তিশা।

সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ
-আপনাকেও ধন্যবাদ।



আরো সংবাদ