১৪ জুলাই ২০২০

নভেম্বরেই ভারতে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ছিল!

নভেম্বরেই ভারতে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ছিল! - সংগৃহীত

চলতি বছরের গোড়ায় নয়, ভারতে করোনার উপস্থিতি ছিল আরো অনেক আগেই। বিজ্ঞানীদের নয়া দাবিতে চমকে উঠছেন ভারতবাসী। স্রেফ পরীক্ষা করা হয়নি বলে সেই সময় বিষয়টি ধরা পড়েনি। কিন্তু বর্তমানে নতুন গবেষণার ফলে বিষয়গুলো সামনে আসছে।

লকডাউন ৫.০-র চতুর্থ দিনে কনটেনমেন্ট জোন ছাড়া ভারতের অন্য এলাকাগুলো স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে শুরু করেছে। যদিও ভারত-সহ এই মুহূর্তে গোটা বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে ৬৫ লক্ষ ৬৮ হাজারের গণ্ডি। আর মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৮৭ হাজার ৯৫৭ জন। ভারতেও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৭ হাজার ৬১৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৮১৫ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮ হাজার ৪০০ জনেরও বেশি। এই পরিস্থিতিতে নতুন চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে আনলেন একদল গবেষক। গবেষকদের দাবি, ৩০ জানুয়ারি নয়, ভারতে প্রথম করোনা ঢুকেছিল নভেম্বরেই!
অবশ্য চীন বলছে, তাদের দেশে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে ডিসেম্বরের শেষ দিকে। তবে কোনো কোনো দেশের দাবি, করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ছিল আরো আগে থেকে।

ভারতীয় সরকারি হিসেব বলছে, ভারতে প্রথম করোনা আক্রান্তের সন্ধান মেলে ৩০ জানুয়ারি। কেরলে চীন ফেরত এক ছাত্রীর শরীরে প্রথম করোনার উপস্থিতির প্রমাণ মেলে। এর আগে ভারতে কোনো করোনা-পরীক্ষা করা হয়নি। তাই নভেম্বর থেকে দেশে করোনা সংক্রমণের বিষয়টিও সামনে আসেনি বলে মত গবেষকদের।

সম্প্রতি কয়েকটি ভাইরাল স্ট্রেন বিশ্লেষণ করে হায়দরাবাদের সেন্টার ফর সেলুলার অ্যান্ড মলিকিউলার বায়োলজি-এর গবেষকদের অনুমান, ৩০ জানুয়ারি নয়, এ ভারতে করোনা ঢুকেছিল তার আগেই নভেম্বর মাস নাগাদ। সম্ভবত ২৬ নভেম্বর নাগাদ তেলেঙ্গানাতে প্রথম সংক্রমিত হয়েছিল করোনা ভাইরাস। তার পর সেখান থেকেই ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ে অন্যত্র। ওই সময়েই ভারতে করোনার ‘মিডিয়ান’ পর্ব শুরু হয়েছিল বলে অনুমান করছেন সিসিএমবির গবেষকদের। এই তথ্য সামনে আসতেই নতুন করে ছড়িয়েছে আতঙ্ক।

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন


আরো সংবাদ