১৩ মে ২০২১
`

৩০ এপ্রিলের লিগে ৪ ক্লাবের আপত্তি

-

শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ফিরতি পর্ব শুরুর তারিখ চূড়ান্ত হয়েছে। গতকাল ক্লাবগুলোর সাথে অনলাইন সভা করে বাফুফের পেশাদার লিগ কমিটির সিদ্ধান্ত, ৩০ এপ্রিল থেকে শুরু হবে লিগের ফিরতি বা দ্বিতীয় পর্ব। তা চলবে ঈদের আগ পর্যন্ত। তত দিনে লিগের ৩-৪ রাউন্ডের খেলা শেষ করা পরিকল্পনা লিগ কমিটির। করোনার কারণে কয়েক ক্লাবের দাবি ছিল সব খেলা ঢাকাতেই সম্পন্ন করতে। তবে লিগ কমিটির সিদ্ধান্ত লিগের বাকি খেলা ঢাকা এবং ঢাকার বাইরের তিন ভেনুতেই হবে। অবশ্য চার ক্লাব ব্রাদার্স ইউনিয়ন, আরামবাগ ক্রীড়া সঙ্ঘ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র এবং উত্তর বারিধারা জানিয়েছে তাদের পক্ষে ৩০ তারিখ থেকে খেলা সম্ভব নয়। আরামবাগ সেক্রেটারি ইয়াকুব আলী জানান, আমরা চার ক্লাব আজ চিঠি দেবো ৩০ এপ্রিল থেকে খেলব না এই তথ্য জানিয়ে।
২৮ এপ্রিল শেষ হচ্ছে দেশে চলমান লকডাউন। এরপর তা বাড়বে কি না তা অজানা। এরপরও ক্লাবগুলো দ্রুত লিগ শেষ করার পক্ষে। ক্যাম্প চালু রাখতে তাদের ব্যয় শুধু বাড়ছেই। তা ছাড়া লিগ পেছালে বিদেশী ফুটবলারদের বেতনও মাস অনুপাতে বৃদ্ধি পায়। তা ছাড়া এএফসি কাপে ঢাকা আবাহনী এবং বসুন্ধরা কিংসের খেলা আছে। জুনে বাংলাদেশ দলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচ। ক্লাবগুলোর আবেদন আর সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনা করেই বাফুফে লিগ শুরু করতে বিশেষ অনুমতি আদায়ে চিঠি দিয়েছে। সে অনুমতি এখনো পায়নি।
অবশ্য রেলিগেশন ঠেকাতে নতুনভাবে দল গোছানো আরামবাগ এবং ব্রাদার্স ইউনিয়ন খুব কমই সময় পাচ্ছে অনুশীলন শুরু করার জন্য। ছুটিতে উত্তর বারিধারা ফুটবলাররা। মুক্তিযোদ্ধার দুই বিদেশী আসতে পারছেন না লকডাউনের জন্য। তাই এই চার ক্লাবের দাবি ঈদের পরে খেলা শুরু হোক। ঈদের পর আবার ৩৫ দিনের জন্য বন্ধ থাকবে লিগ। তা জাতীয় দলের প্রস্তুতি এবং এএফসি কাপের জন্য। ব্রাদার্স ম্যানেজার আমের খান জানান, ‘আমাদের পক্ষে খেলা সম্ভব নয় ৩০ম তারিখ থেকে। আমাদের বাদ দিলে খেলা হলে হোক।’ মুক্তিযোদ্ধার ম্যানেজার আরিফুল ইসলামের বক্তব্য, ‘দুই বিদেশী ছাড়া আমরা পাঁচটি ম্যাচ খেলেছি। এখন কিভাবে দুই বিদেশী কম নিয়ে ফিরতি লিগ খেলব।’ উত্তর বারিধারার সেক্রেটারি জাহাঙ্গীর আলম জানান, কিভাবে ৩০ তারিখে লিগ খেলব। ফুটবলাররা তো ছুটিতে। এই লকডাউনে তারা কিভাবে আসবেন।



আরো সংবাদ


সকল