১৫ জুলাই ২০২০

গাবতলীতে ৩’শ বস্তা চাল অবৈধভাবে বিক্রিকালে ট্রাকসহ ৭ জন আটক

-

বগুড়া গাবতলীর সাবেকপাড়া খাদ্য গুদাম থেকে অবৈধভাবে গুদাম থেকে ৫০ কেজির ৩’শ বস্তা (১৫ মে. টন) চাল বিক্রির সময় হাতে-নাতে ট্রাক’সহ ক্রেতা আমজাদ হোসেন (৪৮), খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা, নাইটগার্ড’সহ ৭জনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

শুক্রবার চাল ক্রেতা আমজাদ হোসেন (৪৮), খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা গাজী মোঃ শফিকুল ইসলাম (৩৭), নৈশ্য প্রহরী সাদেকুল ইসলাম (৪২), সহ ৩জনকে অভিযুক্ত করে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা হারুন উর রশিদ একটি দুর্নীতি আইনে মামলা দায়ের করেছে।

জানা গেছে, গাবতলী মডেল থানার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীন এবং ওসি নুরুজ্জামান এর নেতৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সাবেকপাড়া খাদ্য গুদামে যায়। সকাল আনুমানিক ৯টার দিকে উপজেলা সোনারায় ইউনিয়নের সাবেকপাড়া খাদ্য গুদাম থেকে ঢাকা মোট্রো-ট-১৩-৭৫৩৪ নং একটি ট্রাকে ৫০ কেজির ৩’শ বস্তায় (১৫ মে. টন) চাল নিয়ে গুদাম থেকে রাস্তায় উঠা মাত্রই ট্রাকটি থানা এসআই আব্দুল হাই সঙ্গীয় ফোর্সসহ তাদেরকে আটক করে।

এ সময় ট্রাকে সরকারী গুদাম থেকে অবৈধভাবে চাল ক্রয় করে নিয়ে যাওয়ার সময় চাল ক্রেতা আমজাদ হোসেন’সহ খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা গাজী শফিকুল ইসলাম ও নৈশ্য প্রহরী সাদেকুল ইসলাম এবং ট্রাক ড্রাইভার হেলপারসহ ৭জনকে থানায় নিয়ে আসে। থানা পুলিশ এদের মধ্যে খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা গাজী শফিকুল ইসলাম সিরাজগঞ্জ জেলার চৌহালী থানার দত্তকান্দি গ্রামের শাজাহান আলী সরকারের ছেলে, নৈশ্য প্রহরী সাদেকুল ইসলাম নওগাঁ জেলার সদরের দাসকান্দি গ্রামের মৃত আলিফ উদ্দিনের ছেলে এবং বগুড়ার ধনুট থানার তারাকান্দি গ্রামের মৃত আজাহার আলী মন্ডলের ছেলে সেবা চাতালের মালিক ও ক্রেতা আমজাদ হোসেনকে অভিযুক্ত করে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা হারুন উর রশিদ বাদী হয়ে একটি দুর্নীতি দমন আইনে মামলা দায়ের করেছে।

ঘটনার দিন বিকেল বেলা সোয়া ৬টায় গাবতলী থানা থেকে বগুড়ার দুদক এর উপ-পরিচালক মনিরুজ্জানের নিকট হস্তান্তর করেন।


আরো সংবাদ