৩০ মে ২০২০

দেশীয় এনজিওর টিকে থাকতে সমতাভিত্তিক অংশীদারিত্ব প্রয়োজন

-

আন্তর্জাতিক এনজিও এবং জাতিসঙ্ঘ সংস্থাগুলোর সাথে দেশীয় এনজিওগুলোর পার্টনারশিপ বা অংশীদারিত্ব করার সময় সমতার বিষয়টি বিবেচনা করতে হবে। তবে সব মানবিক এবং উন্নয়ন সংস্থাগুলোকে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। দেশীয় এনজিওগুলোর টিকে থাকা এবং স্থিতিশীল উন্নয়নের জন্যই সমতাভিত্তিক অংশীদারিত্ব প্রয়োজন। গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বক্তারা।
স্থানীয়করণের মাধ্যমে সুশীলসমাজ শক্তিশালীকরণ ‘জাতিসঙ্ঘ অঙ্গসংস্থাগুলো ও আন্তর্জাতিক এনজিওগুলোকে (আইএনজিও) বাংলাদেশে মনিটরিং এবং কলাকৌশলগত সহায়তায় সীমাবদ্ধ থাকতে হবেÑ ‘স্থানীয় সিএসও/এনজিওদের মানিবক উন্নয়ন কার্যক্রমে সম-অংশীদার হিসেবে নেতৃত্বে আসতে সবার সহযোগিতা চাই’ শীর্ষক এ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন এডাবের (অ্যাসোসিয়েশন অব ডেভেলপমেন্ট এজেন্সিস ইন বাংলাদেশ) পরিচালক এ কে এম জসীম, ঢাকা বিভাগের বিডি সিএসও প্রসেসের সমন্বয়কারী মাসুদা ফারুক রতœা, বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশনের সভাপতি এ এস এম বদরুল আলম, বিডি সিএসও প্রসেসের সচিবালয় সমন্বয়কারী মোস্তফা কামাল আকন্দ, কোস্ট ট্রাস্টের সহকারী পরিচালক ফেরদৌস আরা রুমি এবং স্থানীয় এনজিও প্রতিনিধি শিল্ড বাংলাদেশের নির্বাহী প্রধান মো: মাহাবুবুল আলম ফিরোজ। বিডি সিএসও প্রসেসের সচিবালয় সমন্বয়কারী ও কোস্ট ট্রাস্টের সহকারী পরিচালক মোস্তফা কামাল আকন্দের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন ফেরদৌস আরা রুমি।
বদরুল আলম বলেন, আমরা আমাদের এ প্রত্যাশা ও দায়বদ্ধতার সনদ বাস্তবায়নের জন্য ‘বাংলাদেশ সিএসও ও এনজিও সমন্বয় প্রক্রিয়া’ নামের একটি ফোরাম তৈরি করেছিম, যার মাধ্যমে একটি সার্বভৌম, দায়বদ্ধ ও স্থিতিশীল এনজিও খাত গড়ে তোলার জন্য প্রচারণা এবং আলোচনা চালিয়ে যাবো। এ ক্ষেত্রে আমরা গণমাধ্যমের বন্ধুদেরসহ সবার সহযোগিতা কামনা করি।
মাহাবুবুল আলম ফিরোজ বলেন, গ্রান্ড বারগেন প্রতিশ্রুতি স্বাক্ষরিত হয় ২০১৬ সালের মে মাসে ইস্তাম্বু^ুলে। এ চুক্তিতে এই প্রথম স্পষ্টভাবে স্বচ্ছতা, অংশগ্রহণ, স্থানীয়করণ এসব বিষয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়। জাতিসঙ্ঘের প্রায় সব অঙ্গসংস্থা, প্রায় সব দাতা এবং আইএনজিওর সব নেটওয়ার্ক এ চুক্তি স্বাক্ষর করে; কিন্তু বাস্তবে এর কোনো প্রতিফলন আমরা দেখছি না।
এ কে এম জসিম উদ্দিন বলেন, যেহেতু স্থানীয় এনজিওগুলোই সঙ্কটে সবার আগে সাড়া দেয় তাই তাদের দক্ষতা বাড়াতে হবে। মাসুদা ফারুক রতœা বলেন, সব মানবিক এবং উন্নয়ন সংস্থাগুলোকে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। মোস্তফা কামাল আকন্দ বলেন, জাতিসঙ্ঘ সংস্থা এবং আইএনজিওগুলোকে তাদের অংশীদারিত্বের নীতিমালা তৈরি করে, স্বচ্ছতা ও প্রতিযোগিতামূলকভাবে অংশীদার নির্বাচন করতে হবে।


আরো সংবাদ