০৮ জুলাই ২০২০

বাংলাদেশের শুভ সূচনা শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে

সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবলে ৩-০ গোলে জয়
নেপালে সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গোল করার পর বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের উল্লাস : নয়া দিগন্ত -

তিন দিন আগেও হতাশা চেপে ধরেছিল বাংলাদেশের ফুটবলকে। একের পর এক হার। অবশেষে ফের দারুণ সব মুহূর্ত। দুই দিনে তিনটি সাফল্য। তিন দেশ থেকে এলো আনন্দের সংবাদ। গত পরশু কাতারের মাটিতে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ ফুটবলে ভুটানের বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয়। আর গতকাল একই সাথে থাইল্যান্ড ও নেপাল থেকে উড়ে এলো দু’টি দারুণ অর্জনের খবর। এই প্রথম যেকোনো লেভেলে অস্ট্রেলিয়ার ফুটবল দলের বিপক্ষে ২-২ গোলে ড্র করা। তা করেছে বাংলাদেশ মহিলা দল এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ আসরে। প্রায় একই সময়ে কাল নেপালের কাঠমান্ডুতে লাল-সবুজ যুবকদের জয় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবলে গতবারের রানার্সআপ বাংলাদেশ ৩-০ গোলে পরাজয়ের স্বাদ দেয় লঙ্কানদের। ‘বি’ গ্রুপে এই জয়ের ফলে লাল-সবুজদের সেমিফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হলো। এ জন্য আগামীকাল ভারতের কাছে হারতে হবে শ্রীলঙ্কানদের। সে ম্যাচ ড্র হলেও সমস্যা নেই অথবা বাংলাদেশকে ২৫ সেপ্টেম্বর ন্যূনতম ড্র করতে হবে ভারতের সাথে।
কাল কাঠমান্ডুর এপিএফ স্টেডিয়ামে ম্যাচের প্রথম মিনিটেই লিড বাংলাদেশ দলের। কর্নার থেকে আসা বলে ডিফেন্ডার তানভীর হোসেনের হেড চলে যায় নেপালের জালে। ৭৭ মিনিটে আবার কর্নার থেকে বাংলাদেশের গোল। এবার কর্নারের বল গোলরক্ষক ফিস্ট করলে তা গিয়ে পড়ে বক্সের বাইরে থাকা ফাহিম মোর্শেদের পায়ে। সেই বলে তার ভলি তীব্র গতিতে জাল স্পর্শ করে। লাল-সবুজদের তৃতীয় গোল ফয়সাল আহমেদ ফাহিমের। থ্রু পাস থেকে বল পেয়ে বাম পায়ের প্লেসিংয়ে বাংলাদেশের সহজ জয় নিশ্চিত করেন তিনি।
আজ জিতলেই রানার্সআপ বাংলাদেশ
ভুটানের বিপক্ষে দারুণ জয়ের পর এখন আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ দল। এই বাড়তি প্রেরণা নিয়ে আজ কাতারের মাঠে তারা মুখোমখি হচ্ছে ইয়েমেনের। এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ ফুটবলের ‘ই’ গ্রুপ থেকে রানার্সআপ হওয়ার জন্য আজ লাল-সবুজ কিশোরদের জয়ের কোনো বিকল্প নেই। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায় এই ম্যাচ। প্রথম ম্যাচে তারা ০-২ গোলে হেরেছিল কাতারের কাছে। গত পরশু অপর ম্যাচে কাতার ১-১ গোলে ড্র করে ইয়েমেনের সাথে। আজ অন্য খেলায় কাতার পাচ্ছে ভুটানকে। ফলে আজ বাংলাদেশ যদি ইয়েমেনকে হারাতে পারে তাহলে হয়ে যাবে গ্রুপ রানার্সআপ। দুই খেলা শেষে কাতার ও ইয়েমেনের পয়েন্ট চার করে। আর বাংলাদেশের তিন। ২০১৭ সালে এই ইয়েমেনের কাছে ০-২ গোলে হারের ফলে বাংলাদেশের পক্ষে তখন সম্ভব হয়নি চূড়ান্ত পর্বে যাওয়ার। তাই প্রতিশোধের পালা এবার অ্যান্ড্রু রবার্ট বাহিনীর। সাথে বেস্ট রানার্সআপ হয়ে ফাইনাল রাউন্ডে খেলার সুযোগ। উল্লেখ্য, ১১ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন এবং চার বেস্ট রানার্সআপ দল যাবে ফাইনাল রাউন্ডে। ইয়েমেন অবশ্য প্রথম ম্যাচে ১০-১ গোলে হারিয়েছিল ভুটানকে।


আরো সংবাদ

সকল