১০ আগস্ট ২০২০

নারী কর্মীদের খাটো স্কার্ট পরাতে অর্থ বরাদ্দ : তীব্র সমালোচনা

-
24tkt

স্কার্ট পড়ে অফিসে আসতে উদ্বুদ্ধ করতে নারী কর্মীদের বোনাস হিসেবে নগদ অর্থের প্রস্তাব করছে রাশিয়ার একটি কোম্পানি। তবে এ নিয়ে রীতিমত তোপের মুখে পড়েছে কোম্পানিটি।

টেটপ্রফ একটি অ্যালুমিনিয়াম উৎপাদন কোম্পানি এবং আগামী ত্রিশে জুন পর্যন্ত তাদের ‘ফেমিনিটি ম্যারাথন’ প্রচারণা চলবে।

এটি তাদের নারী কর্মীদের স্কার্ট বা এ ধরণের পোশাক পড়ে অফিসে আসতে উদ্বুদ্ধ করার প্রচারণা।

তারা বলছেন যেসব নারী কর্মী স্কার্ট পড়বে তাদের তারা নিয়মিত বেতনের বাইরে একশ রুবল বা দেড় মার্কিন ডলার করে অতিরিক্ত অর্থ দেবে।

স্কার্ট বলতে এখানে হাঁটু থেকে ৫ সেন্টিমিটারের বেশি বড় নয়, এমন পোশাকের কথা বলছে তারা।

আর বোনাস পেতে এলে অফিসে এসে নিজের একটি ছবি তুলে পাঠাতে হবে কোম্পানিকে।

তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে।

কেউ কেউ একে নারীদের বাজেভাবে উপস্থাপনের অভিযোগ করছেন।

সুপরিচিত নারীবাদী ব্লগার ও সাংবাদিক জ্যালিনা মারশেঙ্কুলভাও এনিয়ে কথা বলেছেন।

তবে সেক্সিজমের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে ওই কোম্পানি, যারা ২০১৪ সালের শীতকালীন অলিম্পিক ও ২০১৮ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের মালামাল সরবরাহের কাজ পেয়েছিলো।

‘আমরা আমাদের কাজের দিনগুলোকে উজ্জ্বল করতে চাই’, একটি রেডিও স্টেশনকে বলেন কোম্পানির মুখপাত্র।

‘আমাদের টিমে ৭০ ভাগই পুরুষ। এখানে অনেক নারীই ট্রাউজার পরে আসে। আমরা আশা করছি আমাদের প্রচারণা নারীদের মধ্যে সচেতনতা আনবে যাতে করে তারা তাদের নারীত্বকে উপভোগ করতে পারে।’

রাশিয়ায় টুইটার খুব একটা প্রভাব বিস্তার করে না। তারপরেও অনেকেই টুইটারে এর সমালোচনা করছেন।

একজন লিখেছেন, ‘খাটো স্কার্ট পরার জন্য একশ রুবল বোনাস পেতে যিনি আসবেন তিনি পুরুষ নিয়ন্ত্রিত টিমকে উজ্জ্বল করবেন।’

তবে কোম্পানির মুখপাত্র বলছেন, তাদের সিইও এটি চালু করেছেন যাতে মেয়েরা তাদের মতো করেই অফিস করতে পারে।

‘তাদের কারো ছেলেদের মতো হেয়ার কাটের বা পোশাক পড়ার দরকার নেই। তাদের যা ইচ্ছে সেটাই তারা পরবে।’

সূত্র : বিবিসি


আরো সংবাদ