১২ মে ২০২১
`

আ’লীগ নেতার স্ত্রীকে ইট দিয়ে আঘাত করলেন যুবলীগ সভাপতি

-

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো: নুর আলমের স্ত্রী রেহেনা আক্তার রানীকে (৩৫) ইটের আঘাতে জখম করার অভিযোগ উঠেছে উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ইউনুছ মোল্লার বিরুদ্ধে। সোমবার বিকেল ৫টার দিকে গোয়ালন্দ রেলওয়ে কলোনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ঘটনাটি ঘটে। তবে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও সদ্য নির্বাচিত রাজবাড়ী জেলা পরিষদের এক নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো: ইউনুস মোল্লা এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদ ও ন্যায়বিচারের দাবিতে নুর আলম মঙ্গলবার দুপুরে গোয়ালন্দ প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন। এর আগে সোমবার রাতেই তিনি গোয়ালন্দঘাট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। সেখানে ইউনুস মোল্লা (৫২) ছাড়াও ওই বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণ কাজের ঠিকাদার আবুল কালাম আজাদকে (৫৫) অভিযুক্ত করা হয়েছে।

আহত ওই নারী গোয়ালন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো: নুর আলমের স্ত্রী। নুর আলমের বাড়ি গোয়ালন্দ পৌরসভার সাত নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্গত রেলওয়ে কলোনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন কুমড়াকান্দি গ্রামে। ইউনুস মোল্লা ওই স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি।

সংবাদ সম্মেলনে মো: নুর আলম বলেন, ‘তার বাড়ির সাথে রেলওয়ে কলোনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণ কাজ শুরুর আগে প্রশাসন তার বাড়িতে যাওয়া আসার জন্য ৬ ফুট প্রস্থের জায়গা রেখে কাজ করার কথা বলেছিল। কিন্তু স্কুল কমিটির সভাপতি ইউনুস মোল্লা যুবলীগের প্রভাবশালী সভাপতির প্রভাব খাটিয়ে ঠিকাদার আবুল কালাম আজাদকে দিয়ে আমার বাড়িতে যাওয়া আসার জন্য জায়গা না রেখেই নির্মাণ কাজ শুরু করেন।’

তিনি লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন, ‘সোমবার বিকেল ৫টার দিকে আমি তাদের কাছে এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তাদের সাথে আমার তর্কবিতর্ক হয়। এ সময় আমার স্ত্রী এগিয়ে এলে তারা আমাদের অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন।’

মো: নুর আলম বলেন, ‘এ সময় আমার স্ত্রী গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে ইউনুছ মোল্লা ইট দিয়ে তার বাম পায়ের আঙ্গুলে ও পিঠে আঘাত করে থেঁতলে দেন। এতে সে রক্তাক্ত জখম হন। এ সময় ইউনুস মোল্লা আমার স্ত্রীর পরিহিত কাপড়-চোপড় ধরে টানা-হেঁচড়া করে শ্লীলতাহানি করেন। পরে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তাদের সহায়তায় আমি আমার স্ত্রীকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করি।’

তিনি বলেন, ‘আমি এ ঘটনার ন্যায়বিচার দাবি করছি এবং ইউনুস মোল্লাকে তার দলীয় পদ হতে বহিষ্কারের দাবি জানাচ্ছি।’

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে নুর আলমের মা-বাবা ও দুই সন্তান উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ইউনুস মোল্লা তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমি গত ২৮ ফেব্রুয়ারি রাজবাড়ী জেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। নুর আলম আমার প্রতিপক্ষ গ্রুপের ইন্ধনে এসব করছে। তিনি দলীয় ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরকারি জায়গায় বাড়ি করে বসবাস করছেন। আবার চাঁদা না পেয়ে সরকারি কাজ বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দিয়েছেন। এর আগেও নুর আলম স্কুলের দুটি গাছ কেটে নেন।’

এ ব্যাপারে গোয়ালন্দঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবির বলেন, প্রাথমিকভাবে নুর আলমের দেয়া একটি লিখিত অভিযোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।



আরো সংবাদ


চীনের মন্তব্যের জবাবে যা বললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী (১০২৬৪)হামাসের কমান্ডার নিহত (৯৭৬৫)ইসরাইলি পুলিশের হাতে বন্দী মরিয়মের হাসি ভাইরাল (৭৩০৫)বিহারের পর এবার উত্তরপ্রদেশেও নদীতে ভাসছে লাশ (৬৭৮২)‘কোয়াডে বাংলাদেশ যোগ দিলে ঢাকা-বেইজিং সম্পর্ক খারাপ হবে’ (৫৮৬৩)যৌন অপরাধীর সাথে সম্পর্ক বিল গেটসের! এ কারণেই ভাঙল বিয়ে? (৪৮৬৯)উত্তরপ্রদেশে হিন্দু অধ্যুষিত গ্রামের প্রধান হলেন আজিম উদ্দিন (৪৪৫৬)নন-এমপিও শিক্ষকরা পাবেন ৫ হাজার টাকা, কর্মচারীরা আড়াই হাজার (৪২৪৬)মিতু হত্যা : স্বামী সাবেক এসপি বাবুল আক্তার গ্রেফতার (৩৯৭৩)গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি বিমান হামলায় ৯ শিশুসহ ২০ ফিলিস্তিনি নিহত (৩৮১৪)