৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধের ভাঙন রোধে ফেলা হচ্ছে জিও ব্যাগ

চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধের ভাঙন রোধে ফেলা হচ্ছে জিও ব্যাগ - নয়া দিগন্ত

চাঁদপুর শহর রক্ষা বাঁধে ফের ভাঙন দেখা দেয়ায় সেখানে ফেলা হচ্ছে জিও ব্যাগ। বুধবার দিবাগত রাতে শহরের পুরানবাজার হরিসভা এলাকায় হঠাৎ মেঘনার তীব্র স্রোতে ৩০ মিটার বাঁধের সিসি ব্লকসহ নদীপাড় ধসে যায়। এ সময় সেখানে থাকা সড়ক, বিদ্যুৎ, গ্যাস সংযোগের লাইনও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে মেঘনার ভাঙনের মুখে রয়েছে পুরো এলাকা। ভাঙন আতঙ্কে স্থানীয় বাসিন্দারা মালামাল সরিয়ে নেয় অন্যত্র।

বৃহস্পতিবার ভোর থেকে ভাঙন রক্ষায় বালি ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা শুরু করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, আগে থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হলে এখন এই পরিস্থিতি তৈরি হতো না। ইতোমধ্যে ৩০ মিটার এলাকা নদীতে চলে গেছে। এখন ঝুঁকির মুখে আরো ২০ মিটার।

অন্যদিকে ভোর থেকে পানি উন্নয়ন বোর্ড ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নজরদারি করছেন। এর আগেও কয়েক দফা এমন ভাঙনের শিকার হয় হরিসভা এলাকা। সেখানে সনাতন ধর্মালম্বীদের একাধিক মন্দির, কয়েক শ’ বসতবাড়ি রয়েছে।

চাঁদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: বাবুল আখতার জানান, ভাঙন কবলিত এলাকায় বালি ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে।

বুধবার রাত ১০টায় পুরানবাজার হরিসভা এলাকায় ভয়াবহ ফাঁটল দেখা যায়। এ সময় শহর রক্ষা বাঁধের বেশকিছু ব্লক নদীতে বিলীন হয়ে যায়। মেঘনা নদীর পানি প্রবল বেগে প্রবাহিত হওয়ার পাশাপাশি সৃষ্ট ঘূর্ণিপাকে হরিসভাসহ পুরানবাজার ব্যবসায়িক এলাকাটি ঝুঁকিতে রয়েছে।


আরো সংবাদ

সুবিধাজনক অবস্থায় আজারবাইজান, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির শিকার আর্মেনিয়রা (১৯২৯১)আর্মেনিয়ান রেজিমেন্ট ধ্বংস করলো আজারবাইজান, শীর্ষ কমান্ডারের মৃত্যু (১৪১০৪)আর্মেনিয়া-আজারবাইজান তুমুল যুদ্ধ, নিহত বেড়ে ৯৫ (১৩০২৮)আজারবাইজানের সাথে যুদ্ধ : ইরান দিয়ে আর্মেনিয়ার অস্ত্র বহনের অভিযোগ সম্পর্কে যা বলছে তেহরান (৭৪২৯)স্বামীকে খুঁজতে এসে সন্তানের সামনে ধর্ষণের শিকার মা (৭২৯২)আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার যুদ্ধের মর্টার এসে পড়লো ইরানে (৭২১৭)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : স্বামীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে ধর্ষকরা (৬৪১৯)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : সাইফুরের যত অপকর্ম (৫৯৮৯)‘তুরস্ককে আবার আর্মেনীয়দের ওপর গণহত্যা চালাতে দেয়া হবে না’ (৫৬২১)আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজান দ্বন্দ্ব: কোন দেশের সামরিক শক্তি কেমন? (৫৪৩৫)